২০১৭ সালের বন্যার ত্রাণ কেলেঙ্কারিতে ধৃত তৃণমূল নেতা

180

হরিশ্চন্দ্রপুর: ২০১৭ সালের বন্যার ত্রাণ কেলেঙ্কারিতে এক তৃণমূল নেতাকে গ্রেপ্তার করল হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ। ধৃত বরই গ্রাম পঞ্চায়েতের মোবারকপুর গ্রামের বাসিন্দা শেখ সামাদ। অভিযোগ, নিজের সিএসপির মাধ্যমে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করে বন্যা ত্রাণের প্রচুর টাকা অবৈধভাবে হাতিয়ে নিয়েছে ধৃত। এমনকি মৃত ব্যক্তির অ্যাকাউন্টও ব্যবহার করা হয়েছে ত্রাণের টাকা আত্মসাতের ঘটনায়। জানা গিয়েছে, ধৃত বরই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন পঞ্চায়েত সদস্য। বুধবার ধৃতেক চাঁচল মহকুমা আদালতে পেশ করা হলে তদন্তের স্বার্থে বিচারক পাঁচদিনের পুলিশি হেপাজতের নির্দেশ দেন। যদিও শেখ সামাদ সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে বিধ্বংসী বন্যায় মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর থানার বিস্তীর্ণ অঞ্চল ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। সেসময় সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতগুলির তৈরি সিক্স ম্যান কমিটি ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে রাজ্যেকে পাঠিয়েছিল। সেই তালিকা মোতাবেক ক্ষতিপূরণ বাবদ অর্থ বরাদ্দ করেছিল রাজ্য। সূত্রে খবর, বরই গ্রাম পঞ্চায়েতে বেনিয়ম হওয়া সরকারি টাকার পরিমাণ প্রায় ৭৫ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮০০ টাকা। প্রকৃত দুর্গতদের টাকা না দিয়ে প্রধান তার ঘনিষ্ঠদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকিয়ে তা আত্মসাত করেন বলে অভিযোগ। এমনকি একেকজনের অ্যাকাউন্টে পাঁচ থেকে ছয়বার টাকা ঢোকানো হয়ছে। স্থানীয় একাংশের দাবি, বেশকিছু অ্যাকাউন্ট রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, ঝাড়খন্ড এবং বিহারের। ঘটনার তদন্ত শুরু প্রশাসন। অন্যদিকে, প্রধানের বিরুদ্ধে তদন্তে প্রশাসন অযথা তদন্তে ঢিলেমি করছে বলে অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেন কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান। এরপরই রবিবার প্রধান সোনামনি সাহার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানান বিডিও। ঘটনার পর থেকেই প্রধান সোনামনি সাহা। ঘটনায় তুঙ্গে রাজনৈতিক চাপানউতোর।

- Advertisement -