ফালাকাটায় তৃণমূলের সাংগঠনিক বৈঠক

217

ফালাকাটা: মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণাকেই ভোটের প্রচারে কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল কংগ্রেস। গত মঙ্গলবার জলপাইগুড়ির এক কর্মীসভায় তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ফালাকাটাকে পুরসভা করা হবে বলে ঘোষণা করেন। এই পুরসভার সঙ্গে ফালাকাটার মানুষের আবেগ জড়িয়ে রয়েছে। কারণ, এই দাবি প্রায় দু’দশকের পুরোনো। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, এবার ফালাকাটা পুরসভা হচ্ছে। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই গোটা ফালাকাটার বাসিন্দাদের মধ্যে উচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে। তাই শুক্রবার ফালাকাটায় তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক রিভিউ বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণাকে ব্যাপকভাবে প্রচার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদিও বিজেপির দাবি, এই ঘোষণা হল ভোটের চমক। তাই তৃণমূল এনিয়ে প্রচার করলেও কাজ হবে না বলে বিজেপির নেতারা জানিয়েছেন।

ফালাকাটায় বিধায়ক সহ দক্ষ ও প্রবীণ নেতারা প্রয়াত হওয়ায় একুশের নির্বাচনের আগে যথেষ্ট চাপে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। পরপর দু’বারের এই জেতা আসন এবার শাসক দলের দখলে থাকবে কী না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। ফালাকাটায় তৃণমূলকে এবার নতুন মুখের উপর ভরসা করতে হচ্ছে। এদিকে এই কেন্দ্রে বিজেপির শক্তিও অনেকটা বেড়েছে। এজন্য প্রায় পাঁচ মাস থেকে ফালাকাটায় তৃণমূলের সাংগঠনিক বিভিন্ন বিষয় দেখভাল করছেন দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি ফালাকাটার মানুষের আবেগ বুঝতে পেরেই পুরসভার দাবির বিষয়টি মুখ্যমন্ত্রীকে জানান। রাজনৈতিক সমীকরণের কথা বিবেচনা করেই সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী পুরসভার দাবিকে সিলমোহর দিয়েছেন। কিন্তু এই ঘোষণার পরও যদি ফালাকাটায় দল জিততে না পারে তাহলে স্থানীয় নেতাদের জবাবদিহি করতে হবে। তাই মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণাকে হাতিয়ার করেই দল এবার এগোতে চাইছে।

- Advertisement -

দলীয় সূত্রের খবর, ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে ফালাকাটায় ক্যালেন্ডার ধরে তৃণমূলের সাংঠনিক কাজ চলছে। এজন্য দশ দিন অন্তর সংগঠনের রিভিউ বৈঠক করছেন ঋতব্রত বাবু। এদিন ফালাকাটা কমিউনিটি হলের পাশে দলের কোর কমিটির প্রতিনিধি, ব্লক সভাপতি সুভাষ রায়, ব্লক কমিটির অন্যান্য পদাধিকারী, অঞ্চল সভাপতি ও শাখা সংগঠনের ব্লক স্তরের পদাধিকারীদের সাংগঠনিক বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে বিগত দশ দিনের কাজের খতিয়ান খতিয়ে দেখা হয় এবং আগামী দশ দিনের কাজের ক্যালেন্ডার ঠিক করেন শীর্ষ নেতৃত্ব। এই বৈঠকেই মুখ্যমন্ত্রীর পুরসভার ঘোষণাকে ধন্যবাদ জানিয়ে ব্যাপকভাবে প্রচার চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘এদিন রিভিউ বৈঠক হয়েছে। আগামী দিনের ক্যালেন্ডার ঠিক করে দেওয়া হয়েছে। আর মুখ্যমন্ত্রীর পুরসভার ঘোষণাকেও ফালাকাটার সর্বত্র প্রচার চালানো হবে বলে স্থির হয়েছে।’ দলের জনসংযোগমূলক কর্মসূচি এবং ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচিতেও ফালাকাটার ধারাবাহিক উন্নয়নের কথা দলের নেতাকর্মীদের মাধ্যমে প্রচার চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পাশাপাশি বিজেপির বিরুদ্ধেও প্রচার চালানো হবে। সন্ধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলন করে দলের ব্লক সভাপতি সুভাষ রায় বলেন, ‘বামফ্রন্টের আমলে পুরসভার দাবি পূরণ হয়নি। আমাদের মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষনায় এখন ফালাকাটাবাসীর দীর্ঘদিনের পুরসভার দাবি পূরণ হতে চলেছে। কিছুদিনের মধ্যেই এ ব্যাপারে সরকারি নোটিফিকেশন জারি হবে। আমরা এই ধারাবাহিক উন্নয়নের কথা মানুষের দুয়ারে তুলে ধরব।’ তবে বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক দীপক বর্মন বলেন, ‘এটা হল ভোটের চমক। এই সরকারের মেয়াদ আর কয়েক মাস। তাই ওরা ফালাকাটাকে পুরসভা করতে পারবে না। এর আগেও এরকম ঘোষণা কয়েকবার হয়েছে। বরং আমরা ক্ষমতায় এসে ফালাকাটাকে প্রথমে পুরসভা করব।’