ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে বিজেপির হুমকির জবাব দেওয়ার হুঁশিয়ারি তৃণমূলের

121

বর্ধমান: সভার পালটা সভা ঘিরে রবিবারও রাজনৈতিক উত্তেজনা অব্যাহত পূর্ব বর্ধমানে। এদিন পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের চকদিঘিতে বিজেপি যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁর সভার পালটা এক সপ্তাহের ব্যবধানে দুটি সভা করল তৃণমূল। বিধানসভা ভোটের আগে জনসভার আয়োজনে তৃণমূল ও বিজেপি কার্যতই একে অপরকে টেক্কা দেওয়ার প্রতিযোগিতায় নেমে পড়েছে।

কৃষি আইনের সমর্থনে গত ২০ জানুয়ারি জামালপুরের চকদঘির মাঠে সভা করে বিজেপি। ওই সভায় সেদিন উপস্থিত ছিলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ তথা রাজ্য বিজেপি যুবমোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খান। সভায় বক্তব্য রাখতে উঠে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীর্যক ভাষায় আক্রমণ করেন সৌমিত্র খাঁ। বিজেপি নেতার মন্তব্যের জবাব দিতে ঠিক একদিন পরেই জামালপুর ব্লকের চকদিঘিতে পালটা জনসভা করেন ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শ্রীমন্ত রায়। সেই একই মাঠে রবিবার ফের সভা করে বিজেপিকে চূড়ান্ত হুঁশিয়ারি দিলেন জামালপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান ও ব্লক যুব সভাপতি ভূতনাথ মালিক। সভাস্থল থেকে এই দুই নেতাই জানান, বিজেপির হুমকির হিসাব ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে নেওয়া হবে।

- Advertisement -

ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের যুব সভাপতি তথা পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ ভূতনাথ মালিক বলেন, ‘সভায় উপস্থিতিই প্রমাণ করে দিয়েছে জামালপুরের মানুষ মেহেমুদ খানের সঙ্গে আছে। যদিও এদিন কৃষিবিলের বিরুদ্ধে সভা বলা হলেও তা আসলে ছিল মেহেমুদ খানের শক্তি প্রদর্শনের সভা। তাতে অবশ্য তিনি সফল। কারণ দু’দিন আগে ব্লক সভাপতির সভায় যা ভিড় হয়েছিল তাতে টেনেটুনে পাশ মার্কস পেয়েছেন তিনি। দুপুর ২টার পর থেকে এদিনের মেহেমুদ খানের সভাস্থলের দিকে বাসে, ট্রাক্টরে করে কর্মী সমর্থকরা ঢুকতে শুরু করে। সভায় মহিলাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।’

বিজেপির জামালপুর বিধানসভার আহ্বায়ক জিতেন ডকাল বলেন, ‘তৃণমূল নিজেদের মধ্যেই ‘টি- টোয়েন্টি’ খেলছে। সেই খেলা জামালপুরের বাসিন্দারা এখন দেখছেন। তবে বিধানসভা নির্বাচনে জামালপুরবাসীর ভোটে বিজেপি প্রার্থী চ্যাম্পিয়ন হবে।’ যদিও মেহমুদ খান বলেন, ‘কোন পালটা সভা নয়। রবিবার কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরুদ্ধে সভার আয়োজন করা হয়েছিল। হাজার ২৫ মানুষ সভায় যোগ দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন তাঁরা তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গেই আছেন। দলের উচ্চ নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলে সভার আয়োজন করা হয়েছে। এবার জামালপুর বিধানসভায় তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জিতবেই।’