মাঝপথে শ্রমিকদের নামিয়ে চম্পট দিলেন ট্রাকচালক 

447

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, রাঙ্গালিবাজনা: কিশনগঞ্জ থেকে মাইলের পর মাইল পথ পায়ে হেঁটে পাড়ি দিয়েছেন ওঁরা ১১ জন।

অবশেষে রবিবার রাতে অসমগামী একটি মালবাহী ট্রাক পান তাঁরা। ট্রাকের চালক তাঁদের সোমবার ভোরবেলা আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট-বীরপাড়া ব্লকের রাঙ্গালিবাজনা গ্রাম পঞ্চায়েতের শিশুবাড়ির কাছে নামিয়ে দিয়ে চলে যায়। এতেই বিপাকে পড়েন ওই ১১ জন পরিযায়ী শ্রমিক। এরপর শিশুবাড়ি থেকে পায়ে হেঁটেই তাঁরা রওনা দেন অসমের দিকে। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদের বুঝিয়ে একটি মন্দিরের বিশ্রাম কক্ষে নিয়ে রাখার ব্যবস্থা করেন। এরপর স্থানীয় বাসিন্দারা খবর দেন পুলিশ-প্রশাসনকে।

- Advertisement -

ওই পরিযায়ী শ্রমিকরা জানান,  তাঁদের বাড়ি অসমের কাছাড় জেলায়। কিশনগঞ্জে কাজ করতেন তাঁরা। এদের মধ্যে প্রসেনজিৎ নাথ বলেন, “আমরা যেভাবেই হোক বাড়ি পৌঁছুতে চাই। প্রয়োজনে পায়ে হেঁটে যেতেও রাজী আছি।” পবন নাথ বলেন, “বাড়িতে পরিবার পরিজন আছে। এভাবে কতদিন বাইরে আটকে থাকব?”

প্রসঙ্গত, ওই ১১ জন পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে একজন কিশোরও রয়েছে। তাঁরা জানান, অনেক চেষ্টা করেও সরকারি অনুমতিপত্র পাননি তাঁরা। বাধ্য হয়ে পায়ে হেঁটে বিহার থেকে অসমের দিকে রওনা দেন। পথে অসমগামী একটি ট্রাকের চালকের সাথে চুক্তি করে চার হাজার টাকা দেন। এরপর তেলের টিন বোঝাই ট্রাকের ওপর চেপে রওনা দেন অসমের দিকে।

এদিকে, দিনের আলো ফুটতেই ট্রাকচালক তাঁদের মাঝপথে নামিয়ে চম্পট দেয়। এলাকার বাসিন্দা তথা খিদিরপুর রহমানিয়া হা‌ই মাদ্রাসার শিক্ষাকর্মী বুলু রায় বলেন, “ওঁদের চা বিস্কুট দেওয়া হয়েছে। আমি ওঁদের দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করেছি। পুলিশ-প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।” মাদারিহাট থানার ওসি টি এন লামা বলেন, “ওই শ্রমিকদের ব্যাপারে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।”