তোলাবাজিকে ঘিরে উত্তপ্ত দলমোর বাগান, ট্রাকমালিকের ছেলেকে অস্ত্রের কোপ

363

বীরপাড়া: তোলাবাজিকে ঘিরে উত্তপ্ত হল আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়া থানার দলমোর চা বাগান। তোলা দিতে রাজি না হওয়ায় তোলাবাজদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হয়েছেন বীরপাড়ার এক ট্রাকমালিকের ছেলে। বুধবার বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ দলমোর চা বাগানে তাঁকে মারধর ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয় বলে অভযোগ। গুরুতর জখম হয়েছেন ওই যুবক। ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ।

কার্তিক সুরি নামে ওই যুবকের মাথায় ১৭টি সেলাই পড়েছে। তাঁকে বীরপাড়া রাজ্য সাধারণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে রেফার করেন। জখমের কাকা প্রদীপ সুরি বুধবার বীরপাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করে জানান, এদিন ধারালো অস্ত্র ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তোলাবাজরা কার্তিকের দু’টি ট্রাক আটকে চার হাজার টাকা দাবি করে। তারা কার্তিককে বেধড়ক পেটায়। স্থানীয়রা এগিয়ে গেলে অভিযুক্তরা শূন্যে গুলিও ছোঁড়ে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন প্রদীপবাবু।

- Advertisement -

বীরপাড়া থানার দলমোর, লঙ্কাপাড়া, রামঝোরা, তুলসিপাড়া চা বাগান এলাকায় বীরপাড়া-লঙ্কাপাড়া রোড দিয়ে চলাচলকারী মালবাহী ট্রাক থেকে বরাবরই তোলা আদায় করা হয় বলে অভিযোগ।

ট্রাক মালিক প্রদীপ সুরি বলেন, ‘আমার দু’টি ট্রাক রয়েছে। দাদার রয়েছে ৪টি। পাগলি ভুটান থেকে বীরপাড়া হয়ে বাংলাদেশে পাথর যায় আমাদের ট্রাকে। এজন্য স্থানীয় ‘ভাইদের’ গুন্ডাট্যাক্স দিতে হয়। এতদিন সাত- আটশো টাকা দিতে হত। কিন্তু হঠাৎ করেই দু’হাজার টাকা করে চাইছে ওরা। তাহলে আমাদের ব্যবসা চলবে কীভাবে? এদিকে, পুলিশ তোলাবাজদের আটক করলে সঙ্গে সঙ্গে তাদের বাঁচাতে থানায় হাজির হচ্ছেন রাজনৈতিক দলের নেতারা।’

বীরপাড়া থানার ওসি পালজার ভুটিয়া বলেন, ‘একটি মারধরের ঘটনায় অভিযুক্তদের খোঁজা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, অভিযুক্তদের একজনকে মঙ্গলবার বীরপাড়ায় মারধর করেছিল জখম যুবকের লোকজন। কেউ টাকা দাবি করলে ট্রাকমালিকদের উচিত পুলিশকে জানানো। ওই এলাকায় পুলিশ লাগাতার টহল দেয়।’