শিলিগুড়ি, ১৩ মার্চঃ লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গে টাকা ছড়াতে নেপালকে করিডর করা হচ্ছে। দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ থেকে নেপাল হয়ে উত্তরবঙ্গে কোটি কোটি টাকা ছড়ানোর ছক কষা হয়েছে। এমনই খবর পেয়ে সতর্ক করা হয়েছে দার্জিলিং জেলা পুলিশকে। তৎপর হয়েছে পুলিশও। খড়িবাড়ির ভারত-নেপাল সীমান্ত পানিট্যাঙ্কি ছাড়াও অন্যান্য সীমান্ত এবং দার্জিলিং জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় জাতীয় এবং রাজ্য সড়কগুলিতে নাকা চেকিং শুরু করেছে পুলিশ। টাকার পাশাপাশি অস্ত্র আমদানির সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না রাজ্য পুলিশ। দার্জিলিংয়ের পুলিশ সুপার কে অমরনাথ বলেন, আমরা বিভিন্ন খবরের ভিত্তিতে গোটা জেলাতেই নাকা চেকিং শুরু করেছি। দিনরাত এই নাকা চেকিং চলছে।

আগামী ১১, ১৮ এবং ২৩ এপ্রিল উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ করা হবে। গোয়েন্দা দপ্তর সূত্রের খবর, ভোটে জনগণের মন পেতে কোটি কোটি টাকা ছড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। সেই সূত্রেই উত্তরবঙ্গের আসনগুলিতে জয়ী হতে মরিয়া একটি সর্বভারতীয় রাজনৈতিক দলের তরফে বহু কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে বলে খবর পেয়েছে গোয়েন্দা দপ্তরগুলি। গোয়েন্দা সূত্রের খবর অনুযাযী, দিল্লি এবং উত্তরপ্রদেশ থেকে নেপালকে করিডর করে উত্তরবঙ্গে এই টাকা ঢোকানোর ছক রয়েছে। এমনকি উত্তরবঙ্গের বড়ো বাজারগুলিতেও বাড়তি নজরদারির প্রযোজন রয়েছে বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দারা। সেই খবরের ভিত্তিতেই ভারত-নেপাল সীমান্তের পানিট্যাঙ্কির পাশাপাশি খড়িবাড়ি থানার অধীনে থাকা ভারত-নেপাল এবং বিহার সীমান্ত ছাড়াও ফাঁসিদেওয়া থানার অধীনে থাকা ঘোষপুকুর, বিধাননগর, বাগডোগরায নজরদারি জোরদার করা হয়েছে। নাকা চেকিং করা হচ্ছে পানিঘাটা, দুধিয়া, গাড়িধুরা এলাকার বিভিন্ন সড়কেও।

গোয়েন্দা সূত্রের খবর অনুযায়ী, টাকার পাশাপাশি ভোটের আগে বেআইনি অস্ত্রও মজুত করা শুরু হয়েছে উত্তরবঙ্গে। এই অস্ত্রও বেশিরভাগটাই বিহার এবং নেপাল হযে উত্তরবঙ্গে ঢুকছে। বেশিরভাগ অস্ত্রই আসছে বিহারের মুঙ্গের এবং যোগবাণী থেকে। সেদিকেই বাড়তি নজরদারির নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ। সোমবার দার্জিলিংয়ে নির্বাচন সংক্রান্ত বিষযগুলি নিয়ে আধিকারিকদের পাশাপাশি জেলার প্রতিটি থানার অফিসারদের নিয়ে বৈঠক করেছেন পুলিশ সুপার। সেখানেই প্রত্যেকটি থানাকে নাকা চেকিং এবং বড়ো বাজারগুলিতে নজরদারির বিষয়ে বাড়তি সতর্কতা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ৫০ হাজার বা তার বেশি টাকা কারও কাছে পাওয়া গেলেই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ এবং পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য বলা হয়েছে।