ভোট পরবর্তী হিংসায় উত্তপ্ত তুফানগঞ্জ

103

তুফানগঞ্জ: বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা ছড়িয়ে পড়ল তুফানগঞ্জ ১ ব্লকের দেওচড়াই গ্রাম পঞ্চায়েতের কৃষ্ণপুর বাজারে। এই সংঘর্ষে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। কৃষ্ণপুর বাজারে থাকা তৃণমূল কংগ্রেসকর্মীদের দোকানে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় অভিযোগের আঙুল উঠেছে বিজেপির দিকে। অন্যদিকে, বিজেপিকর্মীদের বাড়িতে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও উভয়পক্ষই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন নাটাবাড়ি বিধানসভায় ভরা ডুবি হয় তৃণমূল কংগ্রেসের। অন্যদিকে, রাজ্যে বিপুল ভোটে ফের ক্ষমতায় ফিরছে তৃণমূল। সে কারনেই বিজেপি এবং তৃণমূল কংগ্রেসের দুই দলই উল্লাসে মেতে ওঠে। এই উল্লাসই কিছুক্ষণের মধ্যে হিংসায় পরিনত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে থাকলেও তারা হিংসার কারনে পিছু হটে। ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কৃষ্ণপুর বাজার। আর এই ঘটনাতেই দোকান, বাড়ি ভাঙচুর চলে। আহত হয় বেশ কয়েকজন। স্থানীয় তৃণমূলকর্মীদের অভিযোগ, এদিন ইচ্ছাকৃতভাবে তাঁদের ওপর হামলা চালায় বিজেপিকর্মীরা। এই ঘটনায় তৃণমূলের কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছে। পাশাপাশি কর্মীদের দোকানে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। স্থানীয় বিজেপিকর্মীদের অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের হার্মাদরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভাঙচুর করে। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত।

- Advertisement -

দেওচড়াই অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মজিবর রহমান বলেন, ‘বিজেপির তরফে এদিন অতর্কিতে হামলা করা হয়। এই ঘটনায় আমাদের কর্মীদের দোকানে ভাঙচুর চালানো হয়। আমাদের বেশ কয়েক কর্মী আহত রয়েছেন।‘

বিজেপির মন্ডল কমিটির সদস্য প্রদীপ দাস বলেন, ‘বাজারে বসে আমরা আনন্দ করছিলাম। সেই সময় তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে ভাঙচুর করে। এই ঘটনায় আমাদের বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়।‘