রোগী মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালে ভাঙচুর, গ্রেপ্তার ২

129

বর্ধমান, ২২ অগাস্টঃ চিকিৎসাধীন রোগী মৃত্যুর ঘটনায় প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগে ২ ব্যক্তি গ্রেপ্তার হলেন। ধৃতদের নাম প্রশান্ত ঘোষ ও কার্তিক বৈরাগ্য। তারা পূর্ব বর্ধমানের আউসগ্রামের শিবদা গ্রামের বাসিন্দা। শনিবার রাতে গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভাঙচুর চালানোর দায়ে এই ২ জনকে আউসগ্রাম থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করে। ধৃতদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। পুলিশ রবিবার ধৃতদের বর্ধমান আদালতে পেশ করেছে। বিচারক ধৃতদের জেল হেপাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার রাতে বছর ৪২ বয়সি আউসগ্রামের শিবদা গ্রামের বাসিন্দা গৌতম পাল অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁর বুকে ব্যাথা হচ্ছিল। পরিবার পরিজন ও প্রতিবেশীরা ওই দিন রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ গৌতমবাবুকে গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসকরা তড়িঘড়ি তাঁর চিকিৎসাও শুরু করেন। হাসপাতালের একটি ব্রেঞ্চে গৌতম বাবুকে রেখে চিকিৎসা চলছিল।

- Advertisement -

সেখানে ইনজেকশন দেওয়ার পর গৌতমবাবু ব্রেঞ্চ থেকে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারান। এরপর চিকিৎকরা পরীক্ষা করে গৌতম পালকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মৃত্যুর খবর জানাজানি হতেই, বেশকিছু লোকজন গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র চত্বরে জড়ো হন। তাঁরা হঠাৎই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের জানালার কাঁচ ভাঙচুর শুরু করে দেন বলে অভিযোগ। বিষয়টি নিয়ে রাতে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা। স্বাস্থ্যকেন্দ্র কর্তৃপক্ষ তৎক্ষনাৎ পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পৌঁছায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পাশাপাশি, কয়েকজনকে আটক করা হয়। পরে, তাদের মধ্যে ২ জনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

মৃত রোগীর ভাই বাপি পাল বলেন, তাঁর দাদাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর ডাক্তারবাবু ইনজেকশন দেন। কিছুক্ষণ পরই তাঁর দাদা হাসপাতালে ব্রেঞ্চ থেকে পড়ে মারা যান। বাপি পাল এদিন দাবি করেন তিনি রোগীকে নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। কারা হাসপাতালে ভাঙচুর করেছে, তিনি তা জানেন না। গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার দেবজ্যোতি ঘোষ বলেন, এভাবে হাসপাতালে হামলা হলে, কি করে চিকিৎসা হবে? ঘটনার পর তাঁরা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টা হাসপাতালে নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করার দাবি করেছেন তিনি।