মাথাভাঙ্গা পুরসভায় এসে পৌঁছোলো দুই রঙের ডাস্টবিন

351

বিশ্বজিৎ সাহা, মাথাভাঙ্গা: ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইবুনালের নির্দেশ মেনে চলতি বছর ১ এপ্রিল থেকে রাজ্যের ১১৮টি পুরসভা ও ৭টি কর্পোরেশন এলাকায় আবর্জনা ফেলার ভ্যাট ও ডাম্পিং গ্রাউন্ড নিষিদ্ধ করার কথা ছিল। পরিবর্তে প্রত্যেক পুরসভা ও কর্পোরেশনকে কঠিন বর্জ্য নিষ্কাশন (সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট) ইউনিট তৈরি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। পুরসভা ও কর্পোরেশনের তরফে নাগরিকদের বাড়ি থেকে আলাদাভাবে পচনশীল ও অপচনশীল বর্জ্য সংগ্রহ করে সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট ইউনিটে নিয়ে প্রক্রিয়াকরণ করতে হবে। তবে করোনা পরিস্থিতির জেরে রাজ্যের বেশিরভাগ পুরসভায় ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইবুনালের নির্দেশ কার্যকরী হয়নি। যদিও মাথাভাঙ্গা পুরসভায় চলতি মাস থেকেই মাথাভাঙ্গা পুরসভা এলাকায় বাড়ি বাড়ি থেকে বর্জ্য সংগ্রহ করবে মাথাভাঙ্গা পুরসভা। তবে মাথাভাঙ্গা পুর এলাকার ১২টি ওয়ার্ডের মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে ২ নম্বর ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে এই কর্মসূচি চালু হয়েছে বলে জানান মাথাভাঙ্গা পুরসভার নির্বাহি আধিকারিক অমলেন্দু শেখর নস্কর।

মাথাভাঙ্গা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারম্যান লক্ষপতি প্রামাণিক বলেন, ‘কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যে এনজিও ‘বিতান’-এর সঙ্গে পুরসভার মৌ স্বাক্ষরিত হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘নাগরিকদের বাড়িতে পচনশীল ও অপচনশীল বর্জ্য আলাদাভাবে রাখার জন্য যথাক্রমে সবুজ ও নীল রঙের ডাস্টবিন পুর ও নগর উন্নয়ন দপ্তর থেকে সোমবার এসে পৌঁছেছে। আপাতত মাথাভাঙ্গা পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সংযোগস্থলে যে ডাম্পিং গ্রাউন্ড রয়েছে সেখানেই অস্থায়ী সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট প্রকল্প শুরু হয়েছে। পরবর্তীকালে পুরসভার স্থায়ী সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট প্রকল্প চালু হলে গোটা প্রক্রিয়া সেখানে সম্পন্ন হবে।’

- Advertisement -