রূপশ্রী কাণ্ড: মুচলেকা দিয়ে টাকা ফেরালেন দুই গৃহবধূ

54

মোথাবাড়ি: ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি মুচলেকা দিয়ে রূপশ্রী কাণ্ডে দুর্নীতি অভিযুক্ত দুই গৃহবধূ ৫০ হাজার টাকা ফিরিয়ে দিলেন মঙ্গলবার। একইসঙ্গে তাঁরা বিডিওকে জানিয়েছেন, না বুঝেই একাজ করেছিলেন। এদিকে, রূপশ্রী কাণ্ডে তদন্ত শুরু করতেই স্পষ্ট হয়েছে, চিনি বিবি ও সোনা বিবির নামে যে ডকুমেন্টস বা তথ্য জমা দেওয়া হয়েছিল সেসব ভুয়ো। সেক্ষেত্রে এবার তদন্ত কমিটির সদস্যরা রূপশ্রী প্রাপকদের সমস্ত নথি খতিয়ে দেখবেন বলেই খবর।

রূপশ্রী দুর্নীতি কাণ্ডে একটি চক্র কাজ করছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছে তদন্তকারী দলটি। অন্যদিকে, তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্তদের ব্লক অফিসে তলব করা হলেও তাঁরা অনুপস্থিত ছিলেন। যদিও ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে বিডিও দপ্তরের পৌঁছোন চেনো বিবি এবং সোনা বিবি। বিডিও-র হাতে মুচকেলা তুলে দেওয়ার পাশাপাশি ৫০ হাজার টাকা ফিরিয়ে দেন তাঁরা। তাঁরা পঞ্চানন্দপুরের সুলতানটোলা গ্রামের বাসিন্দা।

- Advertisement -

জানা গিয়েছে, পঞ্চানন্দপুরের সুলতানটোলার বাসিন্দা চেনো বিবি ও সোনা বিবি। স্থানীয় সূত্রে খবর, ১০ বছর আগে বিয়ে হয় চেনো বিবির। অন্যদিকে, সোনা বিবির বিয়ে হয়েছে বছর ৫ আগে। কিছুদিন আগে তাঁদের অ্যাকাউন্টে রূপশ্রী প্রকল্পের ২৫ হাজার টাকা করে ঢোকে। রীতিমতো বিয়ের কার্ড ছাপিয়ে, ভুয়ো কাগজপত্র দাখিল করা হয়েছে বলে তদন্তে উঠে এসেছে। ওই এলাকার কয়েকজন যুবক বিষয়টি প্রকাশ্যে আনেন। বিডিও-‌র কাছে অভিযোগও জানান। অভিযুক্ত চেনো বিবি ও সোনা বিবি জানান, ‘‌আমাদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকার ব্যাপারে কিছুই জানি না। পরে বুঝতে পেরে এদিন টাকা ফেরত দিয়ে গেলাম।

বিডিও অনির্বাণ সেনগুপ্ত বলেন, ‘‌সরকারি প্রকল্পের কোনও দুর্নীতির সঙ্গে আপোস করা হবে না। এর পেছনে একটি চক্র কাজ করছে। কারণ গ্রামের মহিলাদের পক্ষে এধরণের ভুয়ো কাগজপত্র দাখিল করা সম্ভব নয়। চক্রের হদিস পেতে মোথাবাড়ি থানায় অভিযোগ করা হচ্ছে।’‌