দুটি গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে আগুন, পুড়ে মৃত চালক সহ ২ পথচারী

165

আসানসোল: ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল এক চালক সহ দুই পথচারীর। তেলের ট্যাংকারের সঙ্গে একটি মিনি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে আগুন লাগে। রবিবার ভোর পাঁচটা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে আসানসোল উত্তর থানার কাল্লা মোড়ে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দুটি সাইকেল নিয়ে থাকা দুই পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারায় ওষুধ বোঝাই মিনি ট্রাকটি। সেটি গিয়ে ধাক্কা মারে পাশের লেন দিয়ে যাওয়া তেলের ট্যাংকারকে। আগুন লেগে যায় দুটি গাড়িতেই। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দুই পথচারীর। মিনি ট্রাকের কেবিনের মধ্যে জীবন্ত পুড়ে মৃত্যু হয় চালকের। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দুই পথচারীর নাম সন্তোষ গড়াই(৪০) ও রাখহরি গড়াই(৩৫)। দুজনই মাছ বিক্রেতা। তাদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলেই। অন্যজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় আসানসোল জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তাঁর মৃত্যু হয়। মিনি ট্রাকের চালকের পরিচয় জানা যায়নি। মিনি ট্রাকের খালাসির কোনও হদিশ পাওয়া যায়নি। খালাসি মিনি ট্রাকে ছিল কিনা তা নিয়েও পুলিশ নিশ্চিত নয়। দুর্ঘটনার পরেই ট্যাংকারের চালক ও খালাসি পলাতক।

আসানসোল উত্তর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। আসানসোল থেকে দুটি ও রানিগঞ্জ থেকে একটি করে দমকলের মোট তিনটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে৷ পুলিশের সাহায্যে দমকল কর্মীরা মিনি ট্রাকের কেবিনে থাকা চালককে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় বের করে আনার চেষ্টা করেন। জানা গিয়েছে, ওষুধ বোঝাই করে আসানসোল থেকে ঝাড়খণ্ডের দিকে যাচ্ছিল মিনি ট্রাকটি। অন্যদিকে, খালি তেলের ট্যাংকারটি আসানসোল থেকে দুর্গাপুরের দিকে যাচ্ছিল। ২ নম্বর জাতীয় সড়কের কাল্লা মোড়ে ঝাড়খণ্ডের দিকে যাওয়া মিনি ট্রাকটি দুই পথচারীকে চাপা দিয়ে ধাক্কা মারে পাশের লেন দিয়ে দুর্গাপুরের দিয়ে যাওয়া তেল ট্যাংকারটিকে। সঙ্গে সঙ্গে দুটি গাড়িতে আগুন লেগে যায়। ট্যাংকারের চালক ও খালাসি কোনওমতে গাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে পারে। তবে মিনি ট্রাকের চালক আটকে পড়ে কেবিনের ভেতরেই। দাউ দাউ করে জ্বলতে থাকে আগুন।

- Advertisement -

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, কাল্লা মোড়েই রয়েছে আসানসোল উত্তর থানার ট্র্যাফিক গার্ডের আউট পোস্ট। তারপরও সেখানে বারবার দুর্ঘটনা ঘটছে। পুলিশ এলাকায় পথ দুর্ঘটনা আটকাতে তেমন কোনও পদক্ষেপ করেনি। এদিনও দুর্ঘটনার সময় ট্র্যাফিক পোস্টে কোনও পুলিশ কর্মী ছিলেন না। পাশাপাশি, এদিন দুর্ঘটনার পর উদ্ধার কাজ দেরিতে শুরু হয় বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসীরা। ঘটনার জন্য ২ নম্বর জাতীয় সড়কে ঘণ্টা তিনেকের বেশি সময় গাড়ি চলাচল ব্যহত হয়। পরে দুর্ঘটনাগ্রস্ত দুটি গাড়িকে পুলিশ নিয়ে গিয়ে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক করে। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের ডিসিপি(ট্র্যাফিক) আনন্দ রায় বলেন, ‘সেই ট্র্যাফিক গার্ডের আউট পোস্টে কেন কেউ ছিল না তা দেখা হচ্ছে। ওই মোড়ে দুর্ঘটনা আটকাতে সচেতনতা ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।’