বিএসএফের হাতে নিগৃহীত ২ মহিলা

277

রায়গঞ্জ: বিদ্যালয় থেকে বাচ্চাদের পাঠ্যবই সংগ্রহ করতে যাওয়ার পথে কর্তব্যরত বিএসএফ জওয়ানের হাতে শারীরিকভাবে নিগৃহীত হলেন ২ মহিলা গ্রামবাসী। ঘটনাটি ঘটেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে করনদিঘি থানার কাদেরগছ সীমান্তে। ইতিমধ্যে নিগৃহীত দুই মহিলা বৃহস্পতিবার রাতেই গোটা ঘটনা জানিয়ে করনদিঘি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ অনুযায়ী পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে বলে পুলিশ। সীমান্ত এলাকায় এমন ঘটনা ঘটায় গ্রামবাসীদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়েছে।

করনদিঘি থানার বররা এলাকার বাসিন্দা রাংগা সিংহ পুলিশের কাছে দায়ের করা লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টা নাগাদ তিনি এবং রত্না সিংহ নামে আরেক মহিলা স্থানীয় পৌটি হাই স্কুল থেকে বাচ্চাদের পাঠ্যবই আনতে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর রোড ধরে যাওয়ার পথে তাদের নিগৃহীত করা হয়। অথচ তাঁরা দিনের বেলা যাতায়াতের জন্য সাধারণত এই রাস্তাই ব্যবহার করে থাকে। ওইদিন ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে কাদেরগছ বিওপি ১৪৬ নম্বর ব্যাটেলিয়ন বিএসেফের এক জওয়ান তাঁদের রাস্তা আটকায় এবং তাঁদের এই রাস্তা ব্যবহার করতে নিষেধ করে। কিন্ত তাঁরা ওই রাস্তা দিয়ে যাবে বলতেই ওই জওয়ান ছুটে এসে তাদের এলোপাতাড়ি চড়, ঘুষি মারার পাশাপাশি অকথ্য গালিগালাজ করে। এরপর তাঁরা কোনও মতে সেখান থেকে পালিয়ে আসেন।

- Advertisement -

রাংগা সিংহ আরও অভিযোগ, ‘গালিগালাজ ও মারধোর করার পাশাপাশি ওই বি এস এফ জওয়ান তাদের শাড়ি টেনে ছিড়ে দেয়।আমাদের ঘাড় ধাক্কা দিয়ে চলে যেতে বলে। মারের চোটে আমার কানে আঘাত পাই। এমন ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছি।’

আহত রাঙ্গা সিংহের স্বামী নেপালী সিংহ বলেন, ‘এই এলাকার গ্রামবাসীরা দীর্ঘদিন ধরে এই রাস্তা ব্যবহার করে থাকি। এর আগেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। বিএসএফের পক্ষ থেকে মিটমাট করে নেবার চেষ্টা করা হয়েছে। এভাবে বেশি দিন চলতে পারে না। আমরা এর বিচার চাই।’

অন্যদিকে, বিধায়ক মনোদেব সিনহা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। যদিও বিএসএফের পক্ষ থেকে এই ঘটনার কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানিয়েছেন, ‘বিএসএফের হাতে নিগৃহীত হওয়া নিয়ে থানায় অভিযোগ জমা পড়েছে। আমরা অভিযোগ অনুযায়ী তদন্ত শুরু করেছি।’