পুজো-মেলা শেষ, স্বাভাবিক হয়নি মাঠ

174

শিলিগুড়ি, ২৬ অক্টোবরঃ মেলা শেষ হলেও শহরের একাধিক মাঠে প্রতিদিনের খেলা শুরু হচ্ছে না। মাঠের বিভিন্ন প্রান্তে মেলার সামগ্রী পড়ে থাকার জন্যই এই পরিস্থিতি। মাঠগুলি পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে পুজো কমিটিগুলি উদ্যোগ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে প্রশ্ন উঠেছে পুরনিগমের ভূমিকা নিয়েও। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ শহরের ক্রীড়াবিদরা। তবে মাঠগুলি দ্রুত পরিষ্কার করা হবে বলে জানান ডেপুটি মেয়র রামভজন মাহাতো।

খেলার মাঠে পুজোর সময় মেলা করা নিয়ে আগেই প্রশ্ন উঠেছিল। এবার প্রশ্ন উঠল পুজো উদ্যোক্তা এবং পুরনিগমের ভূমিকা নিয়ে। দুর্গাপুজো পাঁচদিন আগে শেষ হলেও অধিকাংশ মাঠেই পড়ে রয়েছে মেলার সামগ্রী বা দোকানের অংশ। প্রতি বছরের মত এবারও দুর্গাপুজোর সময় সূর্যনগর মিউনিসিপ্যাল গ্রাউন্ড, তরাই স্কুলের মাঠ, শ্রীগুরু বিদ্যামন্দিরের মাঠ, রেলওয়ে ইনস্টিটিউট, শক্তিগড় হাই স্কুলের মাঠ সহ কয়েকটি মাঠে মলা বসেছিল। কিন্তু লক্ষীপুজো শেষ হয়ে গেলেও অধিকাংশ মাঠ খেলার উপযোগী করে তোলা হয়নি। পুজো শেষ হওয়ার সঙ্গেই কমিটিগুলি দায় ঝেড়ে ফেলার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ উঠেছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সূর্যনগর ফ্রেন্ডস ইউনিয়ন পরিচালিত পুজো কমিটির সম্পাদক গোবিন্দ সরকার। তিনি দাবি করেছেন , বৃহস্পতিবার সকালেই সূর্যনগরের মাঠটি পরিষ্কার করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এদিন সন্ধ্যাতেও মেলার বিভিন্ন সামগ্রী প্লাস্টিকে ঢাকা অবস্থায় মাঠের মধ্যে রাখা ছিল। কয়েকটি পুজো কমিটির তরফে জানানো হয়েছে, দু-একদিনের মধ্যেই মাঠ পরিষ্কার করে খেলার উপযোগী করে তোলা হবে। শিলিগুড়ি মহকুমা ক্রীড়া পরিষদের সচিব অরূপরতন ঘোষের মত অনেকেই মনে করেন মাঠগুলি যাতে কোনোভাবেই নষ্ট না হয়, সে ব্যাপারে আরও যত্নবান হওয়া উচিৎ পুজো উদ্যোক্তা ও ক্লাবগুলিকে। ডেপুটি মেয়র রামভজন মাহাতো বলেন, ‘ক্লাবগুলির দায়িত্ব সবচেয়ে বেশি। তবুও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। শুক্রবারের মধ্যে সমস্ত মাঠ পরিষ্কার করে দেওয়া হবে।‌’‌

- Advertisement -