নদী থেকে অজ্ঞাতপরিচয় নাবালিকার দেহ উদ্ধার

কুমারগ্রাম: রবিবার সংকোশ নদীর ঝোরা থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক নাবালিকার দেহ উদ্ধার করল কুমারগ্রাম থানার পুলিশ। ঘটনাকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় কুমারগ্রামের দক্ষিণ চ্যাংমারি এলাকায়। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানোর পাশাপাশি অজ্ঞাত পরিচয় নাবালিকার নাম ঠিকানা জানতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করেছে পুলিশ।

এদিন মাছ ধরতে গিয়ে চ্যাংমারি বিটের জঙ্গল লাগোয়া এলাকায় ঝোরার জলে দেহটি ভেসে থাকতে দেখেন আমগুড়ি গ্রামের এক বাসিন্দা। বিষয়টি নজরে আসতেই তিনি বনকর্মীদের খবর দেন। খবর চলে আসে কুমারগ্রাম থানায়। এরপর পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কোচবিহার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠায়। স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুমান, অসম কিংবা ভুটান থেকে ভেসে আসতে পারে দেহটি। পুলিশ কর্মীদের একাংশও তাই মনে করছেন। কারণ আশপাশের গ্রাম কিংবা চা বাগান এলাকা থেকে গত কয়েকদিনের মধ্যে নাবালিকা নিখোঁজের অভিযোগ থানায় জমা পড়েনি।

- Advertisement -

কুমারগ্রাম থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, অজ্ঞাতপরিচয় নাবালিকার দেহে পচন ধরেছে। ফলে চেনার উপায় নেই। সম্ভবত কয়েকদিন ধরেই দেহটি জলে ভাসছিল। অস্বাভাবিক মৃত্যু মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। প্রতিবেশী দেশ ভুটানের লেময়জিংখা মহকুমা প্রশাসন এবং অসমের কোকরাঝার জেলার গোসাইগাওঁ মহকুমা প্রশাসনকে এব্যাপারে বার্তা পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে ভল্কা রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার কেদার মাহাতো জানান, মেয়েটির পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি। স্থানীয় প্রচুর মানুষ দেখেছেন। কেউই চিনতে পারছেন না। সে এই এলাকার বাসিন্দা নয় বলেই জানা গিয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে।