কাঁচি হাতে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষিকা, কাটা হল ১৬ পড়ুয়ার চুল

285
সংগৃহীত

ঢাকা: টানা সাত দিন পরীক্ষা পড়ায় প্রতিবাদ করেছিলেন পড়ুয়ারা। আর এর শাস্তি হিসেবে ১৬ জন শিক্ষার্থীর চুলই কেটে দিলেন এক শিক্ষিকা। বাংলাদেশের সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে এই ঘটনায় প্রতিবাদে আন্দোলনে নেমেছেন শিক্ষার্থীরা। পরীক্ষা বর্জন করে শিক্ষার্থীদের লাগাতার আন্দোলনের মুখে পড়ে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস সংস্কৃতি ও বাংলাদেশ স্টাডিজ বিভাগের প্রধান ফারহানা ইয়াসমিন প্রশাসনিক দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন। তাঁর স্থায়ী অপসারণের দাবিতে এখনও আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য আব্দুল লতিফ বুধবার বলেন, ‘চুল কাটার ঘটনায় ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটিকে ৭ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।‘

- Advertisement -

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ফাইনাল পরীক্ষা শুরু হয়েছে। টানা ৭ দিন পরীক্ষার রুটিন থাকায় কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রতিবাদ জানায়। এতে ক্ষুব্ধ হন ফারাহানা ইয়াসমিন। এরপর পরীক্ষা হলের দরজায় কাঁচি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন ফারহানা। শিক্ষার্থীরা হলে প্রবেশের সময় যাদের চুল বড় তাদের প্রায় ১৬ জনের মাথার সামনের অংশের চুল কেটে দেন। ওই অবস্থায় পরীক্ষা দিতে বাধ্য করা হয়। অপমান সহ্য করতে না পেরে একজন পড়ুয়া আত্মহত্যারও চেষ্টা করেন।