কিশোরীর অস্বাভাবিক মৃত্যু, কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী বলে দাবি পরিবারের

246

পুরাতন মালদা: এক কিশোরীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটল পুরাতন মালদার ভাবুকে। কীটনাশক খেয়ে সে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি পরিবারের। ওই কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় এক যুবকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও প্রতারণার অভিযোগ দায়ের হয়েছে মালদা থানায়। মৃত কিশোরী তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল বলে অভিযোগ পরিবারের। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

মৃত কিশোরীর পরিবারের দাবি, ১৫ বছরের ওই কিশোরীর সঙ্গে পাশের গ্রামের ওই যুবকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের ঘনিষ্ঠতা বাড়ায় সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। প্রায় তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল মেয়েটি। যদিও এই নিয়ে পরিবারকে কিছু জানায়নি সে। শনিবার প্রেমিক যুবকের সঙ্গে চুপিসারে দেখা করতে যায় ওই কিশোরী। অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ায় সে ছেলেটিকে বিয়ের কথা জানায়। মৃতার পরিবারের অভিযোগ, কিশোরীর ওই প্রস্তাব নাকচ করে দেয় ছেলেটি। উল্টে মেয়েটির বিরুদ্ধে অন্য কারও সঙ্গে সম্পর্ক রাখার অভিযোগ আনতে থাকে। এরপরই শনিবার বিকেলে ঘরে ফিরে বাড়িতে রাখা কীটনাশক খেয়ে নেয় ওই কিশোরী। তবে সেই সময় মেয়েটির মা ও বৌদিরা কাঠ কুড়োতে যাওয়ায় বিষয়টি নজরে আসেনি কারও। প্রায় আধ ঘণ্টা বাদে কিশোরীর মা ও বৌদি ঘরে ফিরে যন্ত্রণায় ছটফট করতে দেখেন ওই কিশোরীকে। এরপর জিজ্ঞাসা করলে সব ঘটনা তার পরিবারকে জানায় মেয়েটি। যেহেতু ছাত্রীর তিন দাদাই ভিনরাজ্যে কাজ করতে গিয়ে লকডাউনের জেরে আটকে পড়েছেন, তাই তার মা ও বৌদি তাকে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। তবে হাসপাতালেই শনিবার সন্ধ্যায় মৃত্যু হয় ওই কিশোরীর।

- Advertisement -

ওই যুবকের বিরুদ্ধে মালদা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে কিশোরীর পরিবার। অভিযোগ পাওয়ার পরই নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদা থানার পুলিশ। খোঁজ চলছে অভিযুক্ত যুবকের।