গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু

163

ময়নাগুড়ি, ২১ জুনঃ গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ময়নাগুড়ির বাংলার ঝাড় গ্রামে। মৃত মহিলার নাম দীপা দাস(২৩)। বুধবার সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। মৃতার বাড়ির লোকের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির অত্যাচার সহ্য করতে না পেরেই আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

জানা গিয়েছে, বছর দুয়েক আগে আলিপুরদুয়ার জেলার শামুকতলার বাসিন্দা পিন্টু নাথ দাসের বড় মেয়ে দীপার বিয়ে হয় ময়নাগুড়ি ব্লকের দোমহনী ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের বাংলার ঝার এলাকার পেষায় কৃষক পিন্টু দাসের সঙ্গে। মৃতার মা সাবিত্রী বালা দাসের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই দীপাকে নানাভাবে অত্যাচার করত শ্বশুর বাড়ির লোকেরা। সন্তান সম্ভবা দীপাকে তার স্বামী বাপের বাড়িতে রেখে আসে। দীপার ছেলের বয়স এখন ছয় মাস। এরপর আর দীপাকে নিতে না আসায় দীপার মা সাবিত্রী বালা দাস জানান রবিবার দীপা ও তার ছেলেকে নিয়ে দীপার শ্বশুর বাড়িতে যান। সেদিন থেকেই দীপার শ্বশুবরাড়ির লোকেরা ফের নির্যাতন চালায়। অভিযোগ, অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অবশেষে আত্মঘাতী হন দীপা। ঘটনার খবর পেয়ে পৌঁছায় ময়নাগুড়ি থানার পুলিশ। ময়নাগুড়ি থানার আইসি নন্দকুমার দত্ত জানান, ঘটনার তদন্তের জন্য দীপার স্বামী পিন্টু দাসকে আটক করা হয়েছে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে।

- Advertisement -

সংবাদদাতাঃ শুভদীপ শর্মা