সালিশিতে বিয়ের নিদান তৃণমূল নেতার, অভিমানে আত্মঘাতী যুবক

158

মানিকচক: সালিশি বসিয়ে জোর করে বিয়ে দেওয়ায় অভিমানে আত্মঘাতী হলেন যুবক। সোমবার মালদার মানিকচক গ্রাম পঞ্চায়েতের মনকুট বাঁধ এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। মৃতের নাম মানিক মণ্ডল (২০)। অভিযোগ, রবিবার রাতে স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার নেতৃত্বে কয়েকজন মাতব্বর সালিশি বসিয়ে ওই যুবককে জোর করে এক কিশোরীর সঙ্গে বিয়ে দেন। সেই অভিমানেই সোমবার আত্মঘাতী হয়েছেন ওই যুবক। পুলিশ দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছে। যদিও এখনও এই ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মানিকের সঙ্গে গ্রামেরই এক কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। রবিবার গ্রামের একটি বাগানে তাদের অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখে ফেলেন গ্রামের একদল মাতব্বর। এরপর তাঁরা সালিশি বসান। সেখানে ওই যুবকের সঙ্গে কিশোরীর বিয়ের নিদান দেন মাতব্বররা। স্থানীয় মন্দিরে তাদের বিয়েও দেওয়া হয়। মানিকের মা বিয়েতে আপত্তি জানালেও তাতে মাতব্বররা কোনও কান দেননি। মানিকের মা শ্যামলী মণ্ডল জানান, আপত্তি থাকা সত্ত্বেও পরিবারকে বিয়ের সিদ্ধান্ত মানতে বাধ্য করা হয়েছে। সেই অভিমানে এদিন আত্মঘাতী হয়েছে ছেলে।

- Advertisement -

এদিকে, অভিযোগ, মানিকচক গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল কংগ্রেস সদস্য আশিস মণ্ডলের নেতৃত্বে ওই সালিশি সভা বসানো হয়েছিল। তাঁর ও অন্য মাতব্বরদের নিদানের জন্যই চরম সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন ওই যুবক। যদিও আশিসবাবু জানান, বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত তিনি নেননি, এটা গ্রামের মানুষেরই সিদ্ধান্ত।

মানিকচক থানার পুলিশ দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। যদিও এই ঘটনায় পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করেনি।