গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু, গ্রেপ্তার স্বামী সহ ৫

449

ঘোকসাডাঙ্গা: বিয়ের দুই বছর পার হতে না হতেই এক গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে তাঁর মেয়েকে খুন করার তুলে মৃতাঁর বাপের বাড়ির লোকজন ঘোকসাডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করে তাঁর স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি সহ মোট ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদিকে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রবিবার ঘোকসাডাঙ্গা থানায় অবস্থান বিক্ষোভ করে পাড়া প্রতিবেশীরা।

মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের দারিকামারী গ্রামের ললিত বর্মনের অভিযোগ প্রায় দুই বছর আগে তাঁর মেয়ে মালতি বর্মনের সঙ্গে নবীনেরদোলা এলাকার শঙ্কর দাসের সঙ্গে বিয়ে হয়। বর্তমানে তাঁর মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা। বিয়ের পর থেকেই কারণে অকারণে তাঁর মেয়ের উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার চালাত স্বামীসহ তাঁর শ্বশুর বাড়ীর লোকেরা। শনিবার স্বামীর ঘর থেকে মালতি বর্মনের গলায় ফাঁস দেওয়া তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

- Advertisement -

তাঁর আরও অভিযোগ, স্বামীসহ শ্বশুর বাড়ির লোকেরা তাঁর মেয়েকে খুন করে। তাঁর শরীরে ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁর মেয়েকে খুন করে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ। এদিকে ঘোকসাডাঙ্গা থানার পুলিশ ঘটনার খবর পেয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাথাভাঙ্গা মর্গে পাঠিয়েছে।

অন্যদিকে, পুলিশ প্রশাসন সূত্রে খবর, শনিবারই মৃতার স্বামী শঙ্কর দাসকে আটক ও পরে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মামলা করা হয়েছে। আইন মেনে সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানানো হয়।

এরপর এদিন নাবীনেরদোলা এলাকার গ্রামের মহিলারা হাতে নানা প্লেকার্ড নিয়ে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ঘোকসাডাঙ্গা থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভ দেখায়। পুলিশ প্রশাসন সূত্রে আশ্বাস মিললে গ্রামের মহিলারা ফিরে যান।

এবিষয়ে পুলিশ জানিয়েছে এবিষয়ে লিখত অভিযোগ জমা পড়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে মৃতাঁর স্বামী শঙ্কর দাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদিন অর্থাৎ রবিবার শ্বশুর-শাশুড়ি সহ আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।