দন্ত চিকিৎসকের অস্বাভাবিক মৃত্যু

কলকাতা: বৃহস্পতিবার দুপুরে এক দন্ত চিকিৎসকের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে কলকাতার আর আহমেদ ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালে চাঞ্চল্য ছড়াল। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

মৃত চিকিৎসকের নাম মানসী মণ্ডল (২৭)। পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের বাসিন্দা মানসী দেবী ওই কলেজ থেকেই বিডিএস নিয়ে পড়াশুনা করে চিকিৎসক হন। বর্তমানে তিনি ওই কলেজেই ওরাল সার্জারি বিভাগের পোস্ট গ্রাজুয়েটের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। এদিন দুপুরে হোস্টেল থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর দেহ উদ্ধার করা হয়।

- Advertisement -

মানসী দেবী বিবাহিত। তাঁর স্বামী ব্যাঙ্গালোরে থাকেন। এদিন হাসপাতাল সূত্রে পাওয়া খবরে জানা যায়, হস্টেলের রুমে তাঁর সঙ্গে আরও দু’জন থাকতেন। তাঁদের মধ্যে একজন বর্তমানে ছুটিতে রয়েছেন। অন্যজন  হাসপাতালের আউটডোরে কাজ করছিলেন। এদিন মানসী দেবীর মা তাঁকে একাধিকবার ফোন করে কোনও সাড়া না পেয়ে তাঁর বান্ধবী তথা রুমমেটকে তিনি ফোন করেন।

বেলা একটা নাগাদ তাঁর রুমমেট অপর চিকিৎসক মৃতার মায়ের ফোন পেয়ে হাসপাতাল থেকে হস্টেলে যান। সেখানে গিয়ে তিনি দেখেন হস্টেলের ঘরটি ভেতর থেকে বন্ধ। অনেক ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া না পেয়ে তিনি বিষয়টি অন্যান্য চিকিৎসকদের জানান। খবর দেওয়া হয় স্থানীয় এন্টালি থানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ঘরের দরজা ভেঙে দেখতে পান, মানসী দেবীর দেহ সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না জড়িয়ে ঝুলছে।

তারা সেখান থেকে মৃতদেহটি নামিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেন। পুলিশ সেই ঘর থেকে একটি ডায়েরি উদ্ধার করেছে। সেই ডায়েরি থেকেই তাঁর মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করছেন তারা। তবে হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। এদিন তাঁর কোনও ডিউটি না থাকায় তিনি হস্টেলেই ছিলেন। দুপুরবেলায় হস্টেলের মেস থেকে দুপুরের খাবার ও খেয়ে আসেন। তারপর থেকে তার কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।