ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইমপিচমেন্টে সায় নেই ভাইস প্রেসিডেন্টের

110

ওয়াশিংটন: আমেরিকার বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইমপিচমেন্টে সায় দিল না ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে বিরোধী নেতাদের এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

ভাইস প্রেসিডেন্ট হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে লিখেছেন, ‘প্রেসিডেন্টের মেয়াদের আর ৮ দিন বাকি। এখন আপনারা চাইছেন আমি ক্যাবিনেট এবং ২৫তম অ্যামেন্ডমেন্টকে স্বাগত জানাই। আমার মনে হয় না এই পদক্ষেপ জাতির পক্ষে লাভজনক হবে।’ অন্যদিকে এই প্রক্রিয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন নন স্বয়ং ট্রাম্পও। টেক্সাসে অভিবাসন নীতি, মেক্সিকোর দেওয়াল নিয়ে কথা বলার সময় ইমপিচমেন্টের বিষয়টি তুলে ট্রাম্প দাবি করেন, ২৫তম অ্যামেন্ডমেন্টে তাঁর কোনও ঝুঁকি নেই।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, ক্ষমতার হস্তান্তরকে কেন্দ্র করে আমেরিকার ক্যাপিটেল বিল্ডিংয়ে ‌হামলার চালায় ট্রাম্প সমর্থকরা। আমেরিকার সংসদে জো বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচনের সময় ব্যারিকেড ভেঙে ভবনের ভিতরে ঢুকে পড়েন ট্রাম্প সমর্থকরা। এরপর সেখানে রীতিমতো তাণ্ডব চালান তাঁরা। এই ঘটনার পর থেকে নিন্দায় সরব হয় গোটা বিশ্ব। ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে সরাতে মরিয়া হয়ে ওঠেন হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। এখনই সরে যেতে হবে ট্রাম্পকে, নয়তো পদক্ষেপ করবে কংগ্রেস। এমনই হুঁশিয়ারি দেন মার্কিন কংগ্রেসের হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তিনি ও সেনেটের ডেমোক্র্যাট লিডার চাক শুমার ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তোলেন। তাঁদের বক্তব্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের ২৫তম সংশোধন মেনে ট্রাম্পকে সরিয়ে দেওয়া হোক। এই নিয়ে ডেমোক্র্যাট নেতাদের চিঠি দেন ন্যান্সি পেলোসি। তাতে স্পষ্টভাবে জানানো হয়, বিদায়ী প্রেসিডেন্ট যদি নিজে থেকে সরে না দাঁড়ান, তবে তাঁর বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট প্রক্রিয়া শুরু করতে তাঁরা প্রস্তুত। এই নিয়ে সরগরম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিশ্বের বিভিন্ন মহল। সেই নিয়ে এখন জল্পনা তুঙ্গে। এই অবস্থাতেই আগামী ২০ জানুয়ারি আমেরিকার নতুন প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেবেন জো বাইডেন।