স্বাস্থ্যকেন্দ্র চত্বরে কোভিড টেস্টে ব্যবহৃত কিট, চাঞ্চল্য

208

বর্ধমান: স্বাস্থ্যকেন্দ্র চত্বরে কোভিড টেস্টে ব্যবহৃত কিট পড়ে থাকা নিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের মেমারিতে। শনিবার মেমারির পাল্লারোড এলাকার বাসিন্দারা স্থানীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র চত্বরে কোভিড টেস্টে ব্যবহৃত কিট, স্পুটাম, টেস্টের খালি কৌটো সহ নানা বর্জ্য পড়ে থাকতে দেখেন। ঘটনাটি জানাজানি হতেই সংক্রমণের আশঙ্কায় ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের আশপাশের বাসিন্দারা। যদিও বিষয়টি নিয়ে দায় এড়িয়ে গিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এলাকার বাসিন্দা সন্দীপন সরকার বলেন, ‘যতদূর জানি কোভিডের জীবাণু লালার সঙ্গে খোলা জায়গায় বেশ কয়েকঘণ্টা বাঁচতে পারে। সেখানে স্বাস্থ্যকেন্দ্র কর্তৃপক্ষ কিভাবে এমন কাজ করল, তা বোঝা যাচ্ছে না। এগুলি দ্রুত পরিষ্কার করা উচিত।’ স্বাস্থ্য দপ্তরের নিয়ম অনুযায়ী কোভিড টেস্টে ব্যবহৃত কিটগুলি ব্লক বা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে নিয়ে যাওয়ার কথা জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের। কিন্তু যতদিন না নিয়ে যাওয়া হয় ততদিন তা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভিতরেই কোনও বদ্ধ জায়গায় সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড বা ব্লিচিং পাউডার দিয়ে রেখে দেওয়ার দরকার ছিল। তা না করে ব্যবহৃত কিট কিভাবে বাইরে এল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সন্দীপনবাবু। এলাকার অপর বাসিন্দা ভুবনেশ্বর সরকার, কামেশ্বর রানারা অতিসত্ত্বর হাসপাতাল চত্বরে পড়ে থাকা বর্জ্য নষ্ট করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।

- Advertisement -

পাল্লারোড স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার অপরাজিতা চট্টোপাধ্যায় নিজেই কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর। ঘটনার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া পাওয়ার জন্য তাই তাঁর সঙ্গে মেমারি ১ নম্বর ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক হর্ষ ঘোষের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এরকম খবর তাঁর জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখবেন বলে জানিয়েছেন বিএমওএইচ।