পুনে, ১৫ ফেব্রুয়ারিঃ যুবক ছেলেকে হারিয়েও নাতি নাতনির মুখ দেখলেন পুনের এক বৃদ্ধ দম্পতি। বছর দুয়েক আগেই ব্রেন টিউমারে মৃত্যু হয় বছর ২৭ এর ওই  যুবকের। উচ্চশিক্ষার জন্য জার্মানিতে থাকাকালীন ২০১৩ সালে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে তাঁর। কেমোথেরাপিতে প্রজনন ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় ডাক্তাররা বীর্যের নমুনা সংরক্ষণ করার পরামর্শ দেন তাঁকে। হাজার চিকিত্সা সত্ত্বেও আর সুস্থ হতে পারেননি তিনি। অবশেষে ২০১৬ এর সেপ্টেম্বরে পুনেতেই তাঁর মৃত্যু হয়।

তবে ছেলে হারানোর যন্ত্রণা কুড়ে কুড়ে খাচ্ছিল ওই দম্পতিকে। নাতি-নাতনির মুখ দেখতে ৪৯ বছর বয়সী ওই মহিলা জার্মানির স্পার্মব্যাংকে যোগাযোগ করে সিমেন সংগ্রহ করেন। এরপর আইভিএফ সেন্টারে যোগাযোগ করেন। এগ ডোনার ম্যাচ করে তাঁর থেকে পাওয়া ডিম ও সেই শুক্রাণুর মিলনে ৪টি ভ্রূণ তৈরি করা হয়। নিজে গর্ভধারণের ইচ্ছা প্রকাশ করেলও শারীরিক দিক থেকে অক্ষম তিনি। তাই ওই মহিলার ৩৮ বছর বয়সী এক তুতো বোন তাঁর গর্ভ দান করতে রাজি হন। প্রথম চেষ্টাতেই সফল হন তিনি। ১২ ফেব্রুয়ারি জন্ম দেন যমজ সন্তানের।