সরকারি হোমের ৫৭ মহিলা করোনা আক্রান্ত

অনলাইন ডেস্ক: সরকারি হোমের ৫৭ জন মহিলার শরীরে করোনার সংক্রমণ মিলল।

উত্তরপ্রদেশের কানপুরের একটি হোমের এই ঘটনায় শহরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ৫৭ জন করোনা পজিটিভের মধ্যে ৫ জন অন্তঃসত্ত্বা। রাজ্য সরকার পরিচালিত ওই হোমে এক সপ্তাহে এই ৫৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ মিলেছে।

- Advertisement -

আক্রান্ত ৫৭ জনকেই কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে ওই হোমের কোনও কর্মীও শরীরে করোনা ভাইরাস মেলেনি। হোমের বাকি মহিলা ও কর্মীদের সেখানেই কোয়ারান্টিনে রাখার পাশাপাশি হোমটি সিল করে দিয়েছে প্রশাসন।

রবিবার সকালে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে চাউর হয়, ওই হোমের দুই করোনা পজিটিভ মহিলা অন্তঃসত্ত্বা। সরকারি হোমে মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে রাজ্যে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। রাতে কানপুরের জেলাশাসক বিডি তিওয়ারি জানান, দু’জন নয়। পাঁচ জন মহিলা অন্তঃসত্ত্বা। ডিসেম্বর মাসে হোমে আসা থেকেই তাঁরা অন্তঃসত্ত্বা ছিল।

তিনি আরও জানান, পাঁচটি জেলা থেকে পৃথক পৃথক সংস্থা ওই ৫ মহিলাকে হোমে পাঠিয়েছিল। উত্তরপ্রদেশের মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন পুনম কাপুর জানান, সম্প্রতি হোমের এক কর্মী কানপুর হাসপাতালে গিয়েছিলেন। তাঁর সঙ্গে আবাসিক দুই মহিলাও ছিলেন। তাঁরা হাসপাতালে কোভিড-১৯ রোগীর সংস্পর্শে আসার ফলেই হোমে এমন ব্যাপক সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলেই মত তাঁর।

এদিকে রবিবার রাতের হিসেব অনুযায়ী কানপুরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪০০। রাজ্য়ের আরেক শহর নয়ডায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭৭। উত্তরপ্রদেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজার ছুঁই ছুঁই। এই মুহূর্তে কোভিড-১৯ সক্রিয় রয়েছে ৬২৮৬ জনের শরীরে। মৃত্যু হয়েছে ৫৫০ জনের।

অন্যদিকে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রামিতের সংখ্যা প্রায় ১৫ হাজার। সোমবার দেশের করোনা সংক্রান্ত সর্বশেষ বুলেটিন অনুযায়ী, এ পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রামিত হয়েছেন ১৪ হাজার ৮২১ জন। এর ফলে ভারতে মোট সংক্রামিতের সংখ্যা ৪ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৪৪৫ জনের।

সব মিলিয়ে ভারতে সংক্রামিতের সংখ্যা ৪ লক্ষ ২৫ হাজার ২৮২। মোট মৃতের সংখ্যা ১৩ হাজার ৬৯৯। তবে আশার কথা, সংক্রামিতের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন প্রায় ১০ হাজার মানুষ। এখনও পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ২ লক্ষ ৩৭ হাজার ১৯৬ জন। ভারতে এখন সুস্থতার হার প্রায় ৫৬ শতাংশ (৫৫.৪৯%)।