‘পাহাড়ে যাতায়াতকারী গাড়িগুলি পুলিশের হাতে হয়রানি হচ্ছে’; তরাই চালক সংগঠন

194

শিলিগুড়ি: শিলিগুড়ি থেকে পর্যটক ও সাধারন যাত্রী নিয়ে পাহাড়ে যাতায়াতকারী ভাড়া গাড়িগুলিকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে পুলিশের হাতে। শনিবার শিলিগুড়িতে সাংবাদিক বৈঠক করে এই অভিযোগ তুলল তরাই চালক সংগঠন। তাঁরা অভিযোগ করে জানান, সুকনা থেকে শুরু করে রোহিনী, কার্শিয়াং, সোনাদা, ঘুম সহ সাত আট জায়গায় পুলিশ গাড়ি দাঁড় করিয়ে নথিপত্র এবং অন্যান্য তথ্য তল্লাশি করছে। যার ফলে পর্যটকরা যেমন হয়রানির শিকার হচ্ছেন, তেমনই সময়ও নষ্ট হচ্ছে।

এদিন তরাই চালক সংগঠন দাবি করেছে, টাইগার হিলে যাওয়ার জন্য পুলিশের যে অনুমতি নিতে হয়, সেই অনুমতি দেওয়ার কাউন্টার শিলিগুড়িতেও খোলা হোক। যাতে এখান থেকে অনুমতি নিয়ে একই দিনে পর্যটকরা টাইগার হিল ঘুরে আসতে পারেন। শিলিগুড়িতে এই ব্যবস্থা না থাকায় এখন দার্জিলিং গিয়ে অনুমতি নিতে পর্যটকদের এক রাত থাকতে হচ্ছে। ফলে সেটি ব্যয়বহুল।

- Advertisement -

সংগঠনের সাধারন সম্পাদক মেহেবুব খান বলেন, ‘পুলিশ কোনো একটি জায়গায় গাড়ি তল্লাশি করে “ওকে” স্টিকার বা কুপন ব্যবস্থা চালু করুক। অন্য জায়গায় ওই কুপন দেখালেই যাতে পুলিশ ছেড়ে দেয়। আগামী সোমবার সংগঠনের বার্ষিক সাধারন সভা দার্জিলিং মোড়ের মঙ্গল মাইতি ভবনে অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ৫০৯-৬০০ গাড়ি চালক সমবেত হবেন। তাঁরা ওই দিন গাড়ি চালাবেন না। এর ফলে ওই দিন শিলিগুড়ি থেকে দার্জিলিং, কার্শিয়াং, মিরিক রুটে ছোটো ভাড়া গাড়ি কম থাকবে। মানুষ যাতে ওই দিন খুব প্রয়োজন ছাড়া মানুষ পাহাড়ে না যান সেই আবেদনই জানানো হচ্ছে।’