পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের জমি পরিদর্শনে উপাচার্য

527

মাথাভাঙা: ১০ বছর আগে মনীষী পঞ্চানন বর্মা জন্মভিটা খলিসামারিতে তার নামাঙ্কিত বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবিতে যে আন্দোলন শুরু হয়েছিল তার ফলস্বরূপ কোচবিহার শহরে পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হয়। তবে যে স্থান থেকে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের আন্দোলন শুরু হয়েছিল এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবিতে এলাকার বাসিন্দারা স্বেচ্ছায় জমি দান করেছিলেন সেই খলিসামারিতে বিশ্ববিদ্যালয় না হওয়ায় জমিদাতা এবং এলাকাবাসীর আক্ষেপ ছিল। তবে খলিসামারির পরিবর্তে কোচবিহার শহরে পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হওয়ার পর প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থানে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস চালুর দাবিতে ধারাবাহিক আন্দোলন চালিয়ে আসছিল পূণ্যভূমি খলিসামারি পঞ্চানন বর্মা মেমোরিয়াল এন্ড ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট। নেতৃত্বে ছিলেন খলিসামারি পঞ্চানন স্মৃতি বিদ্যাপীঠের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গিরীন্দ্রনাথ বর্মন। খলিসামারিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের জন্য উদ্যোগী হন কোচবিহার পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডঃ দেবকুমার মুখোপাধ্যায় সহ জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্ব-এবং সংগঠন।

অবশেষে গত ২০ সেপ্টেম্বর রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় টেলিফোনে উপাচার্য ডঃ দেব কুমার মুখোপাধ্যায়কে জানিয়ে দেন খলিসামারিতে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের অনুমোদন দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মুখ্যমন্ত্রীর অনুমোদনের পর শনিবার প্রস্তাবিত দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের জমি পরিদর্শনের জন্য খলিসামারি যান উপাচার্য। সঙ্গে ছিলেন কোচবিহারের প্রাক্তন সংসদ ও তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায়, এসজেডি-এর চেয়ারম্যান বিজয় বর্মন, শীতলকুচির বিধায়ক হিতেন বর্মন প্রমুখ। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এদিন, দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের জন্য যারা জমি দান করেছেন এবং খলিসামারির সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, খুব শীঘ্রই দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের কাজ শুরু হবে। এরফলে ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার যেমন সুবিধা হবে তেমনি এলাকার অর্থনীতি পাল্টে যাবে। পার্থ প্রতিম রায়, বিজয় বর্মন, হিতেন বর্মনরাও খলিসামারিতে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন।

- Advertisement -

মনীষী পঞ্চানন বর্মার জন্মভিটায় পঞ্চানন বর্মা সংগ্রহশালাও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কোচবিহার পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। উপাচার্য এদিন সংগ্রহশালাটিও পরিদর্শন করেন। এদিন মাথাভাঙ্গা পঞ্চানন মোড়ে পঞ্চানন বর্মার ব্রোঞ্জ মূর্তিতে মাল্যদানের পর খলিসামারিতে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে পঞ্চানন মোড় থেকে মাথাভাঙ্গা শহর পর্যন্ত অভিনন্দন যাত্রার আয়োজন করে পূণ্যভূমি খলিসামারি পঞ্চানন বর্মা মেমোরিয়াল এন্ড ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট।