ফুটব্রিজ না হওয়ায় সাঁকো তৈরি করছেন স্থানীয়রা

260

নয়ন রায়, সোনাপুর : লোকসভা নির্বাচনের পর প্রায় ছয়মাস পেরিয়ে গেলেও কুরমাই নদীর ওপর এখনও ফুটব্রিজ তৈরির কাজ শুরু না হওয়ায় দক্ষিণ চকোয়াখেতির কার্জিপাড়া গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং ওই ফুটব্রিজের বরাতপ্রাপ্ত ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তাঁরা। এদিকে, প্রশাসন উদ্যোগী না হওয়ায় সম্প্রতি গ্রামবাসীরা কুরমাই নদীর ওপর স্বেচ্ছাশ্রমে একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেন কাজ শুরু হল না সে বিষয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন অনেকেই। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তরফে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার কথা বলা হয়েছে।

চকোয়াখেতি গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ চকোয়াখেতি কার্জিপাড়া গ্রামের কুরমাই নদীর ওপর প্রায় ৬০ ফুট দীর্ঘ একটি ফুটব্রিজ তৈরির ভিত্তিপ্রস্তরের কাজ চলতি বছরের লোকসভা নির্বাচনের ঠিক আগে সম্পন্ন হয়েছিল। আলিপুরদুয়ারের প্রাক্তন সাংসদ দশরথ তিরকির সাংসদ তহবিল থেকে মোট ২৫,৬৭,০৫৫ টাকায় ওই ব্রিজ তৈরির কথা ছিল। কিন্তু লোকসভা নির্বাচন মিটে যাওযার পর প্রায় ছয়মাস হতে চললেও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা ছাড়া ব্রিজের কাজ আর একচুলও এগোয়নি। স্থানীয় সূত্রে খবর, ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের আগে পর্যন্ত ওই জায়গায় বাঁশের সাঁকো দিয়ে বাসিন্দারা নদী পারাপার করতেন। ফুটব্রিজ তৈরির জন্য সেটি ভেঙে ফেলা হয়। কিন্তু এতদিনেও কাজ শুরু না হওযায় সম্প্রতি এলাকাবাসী সেখানে ফের স্বেচ্ছাশ্রমে একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করে দিচ্ছেন। সেবা ভারতীর আলিপুরদুযার শাখার সদস্য দিব্যতনয়, যোগেশ রায়, সুমিত কর্মকার প্রমুখ বাসিন্দা সাঁকো তৈরির কাজে হাত লাগান।

- Advertisement -

গ্রামবাসী সম্রাট রায় বলেন, লোকসভা নির্বাচনের আগে লোক দেখানো ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন শাসকদলের নেতারা। তারপর দুই ট্রলি বালি-পাথর ফেলা ছাড়া আর কোনো কাজ হয়নি।  একই সমস্যার কথা জানায় গ্রামের স্কুলপড়ুযা সন্দীপ রায়, প্রিয়দীপ রায়, অভিষেক কার্জি। আলিপুরদুয়ার-১ পঞ্চায়েত সমিতির সহসভাপতি লক্ষ্মীকান্ত রাভা বলেন, ফুটব্রিজ তৈরির টেন্ডার প্রক্রিয়া সহ যাবতীয় কাজ হয়ে গিয়েছে। তা সত্ত্বেও কেন কাজ হল না সেই বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে দেখছি। বিডিও শ্রেয়সী ঘোষ বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ফুটব্রিজের ঠিকাদারি সংস্থার এক কর্মী জানান, বর্ষায় নদীতে জল বেড়ে যাওযায় সে সময় কোনো কাজ করা যায়নি। এখন জল কমেছে। কিছুদিনের মধ্যেই ব্রিজের কাজ শুরু করা হবে।