বেহাল রাস্তা মেরামতের দাবিতে গাছের গুঁড়ি ফেলে বিক্ষোভ

198

বর্ধমান: চোদ্দটি গ্রামের মানুষের যাতায়াতের অন্যতম রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। বারবার প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেও বেহাল রাস্তা সারাইয়ের কোন উদ্যোগ নেয়নি পূর্ত দপ্তর। তারই প্রতিবাদে রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে বিক্ষোভ দেখালেন গ্রামবাসীরা। বুধবার পূর্ব বর্ধমানের গলসি ১ ব্লকের তিলডাঙ্গা এলাকার ঘটনা। সকাল দশটা থেকে শুরু হওয়া অবরোধ বিক্ষোভ ঘন্টাখানেক চলার পর বুদবুদ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিক্ষোভ সামাল দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ২ নম্বর জাতীয় সড়কের তীলডাঙ্গা মোড় হয়ে তাঁদের এলাকার ১২-১৪ কিলোমিটার রাস্তা সারাইয়ের বরাত পেয়েছে একটি ঠিকা সংস্থা। তারা তাঁদের তিলডাঙ্গা এলাকায় ওই রাস্তায় পাথর বিছিয়ে দেওয়ার পর বাকি আরকোনও কাজ করেনি। রাস্তার কাজও দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রেখেছে ঠিকাদার সংস্থা। তার জেরে চুড়ান্ত ভাবে নাকাল হতে হচ্ছে তিলডাঙ্গা সহ প্রায় ১৪টি গ্রামের হাজার হাজার বাসিন্দাকে।

- Advertisement -

তিলডাঙার বাসিন্দা সেখ মিঠু বলেন, রাস্তা তৈরির কাজ দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় এলাকার মানুষজনকে নিত্য দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এই রাস্তাটি এলাকার প্রায় চোদ্দোটি গ্রামের মানুষের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তা। সেই রাস্তায় শুধু পাথর পড়ে থাকায় গাড়ির টায়ারে লেগে পাথর ছিটকে পথচারীরা আহত হচ্ছে। এছাড়াও পাথর ছড়ানো রাস্তা দিয়ে সাধারণের হেঁটে চলাও দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে। সাইকেল ও বাইকে চড়ে যাওয়ার সময়ে আরোহীরা হড়কে রাস্তায় পড়ে যাচ্ছে। প্রশাসনকে এই বিষয়ে বারবার বলা হলেও প্রশাসন কিংবা ঠিকাদার সংস্থা কোন হোলদোল দেখায়নি। সেখ মিঠু জানান, এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেতে এদিন এলাকার বাসিন্দারা রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে বাধ্য হয়েছে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগের বিষয়ে গলসি ১ ব্লকের বিডিও দেবলীনা দাস বলেন, পূর্ত দপ্তরের জেলার এক্সজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার ও ঠিকা সংস্থার সঙ্গেও তিনি কথা বলেছেন। বর্তমানে ঠিকাদার সংস্থা ওই রাস্তার কসবা পানাগড়ের কাছাকাছি দুই কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করছে। সেই কাজ শেষ হতে আর দশদিন লাগবে। তারপরই তিলডাঁঙা গ্রামে রাস্তার কাজ তারা শুরু করে দেবে।”