রাস্তার বেহাল দশা, প্রতিবাদে পোলিও বয়কট গ্রামবাসীর

79

রামপুরহাট: প্রধান রাস্তার বেহাল দশা। রেল থেকে রাজ্য, সর্বত্র আবেদন করেও হাল ফেরেনি। প্রতিবাদে পোলিও বয়কট এবং রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করল গ্রামবাসীরা। রবিবার সকাল থেকে রাস্তা অবরোধ করে রাখেন কুমারসণ্ডা ও সালিসন্ডা গ্রামের মানুষ। বয়কট করেন পালস পোলিও। স্বাস্থ্যকর্মীরা গ্রামে পোলিও দিতে পৌঁছোলে তাদের আটকে রাখেন গ্রামের মানুষ।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বীরভূমের নলহাটি ২ নম্বর ব্লকের রেলগেট থেকে মুর্শিদাবাদের মোড়গ্রাম পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল অবস্থা। এটি প্রায় আট-দশটি গ্রামের প্রধান যাতায়াতের রাস্তা। সংস্কার না হওয়ায় ওই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করতে সমস্যায় পড়েছেন বাসিন্দারা। রাস্তাটি রেলের জায়গার ওপর হওয়ায় রেলের মুর্শিদাবাদের আজিমগঞ্জ শাখায় রাস্তা সংস্কারের লিখিত আবেদন জানান এলাকার মানুষ। আবেদন জানানো হয়েছে বীরভূমের নলহাটি ২ নম্বর ব্লকেও। কিন্তু কেউ কর্ণপাত করেনি বলে অভিযোগ গ্রামবাসীদের।

- Advertisement -

গ্রামের বাসিন্দা সৈয়দা বিবি রাহান বলেন, ‘আমাদের রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে খারাপ। ফলে না পারছি লোহাপুর বাজার যেতে, না পারছি মোড়গ্রাম যেতে। শুধুমাত্র গ্রামের মধ্যে ঢুকে থাকতে হচ্ছে। তাই আমরা পোলিও খাওয়াবো না।‘ কুমারসন্ডা গ্রামের বাসিন্দা মুর্শিদ আলম বলেন, ‘আমাদের রাস্তা বছরের পর বছর বেহাল। ছেলেমেয়েরা রাস্তায় চলাফেরা করতে পারে না। গ্রামের কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে। আমরা সর্বত্র বিষয়টি জানিয়েছি। কিন্তু কাজের কাজ কিছু হয়নি।‘

স্বাস্থ্যকর্মী রহমতুল্লাহ বলেন, ‘আমরা গ্রামে শিশুদের পোলিও দিতে এসেছি। কিন্তু গ্রামবাসীরা শিশুদের পোলিও না দিয়ে আমাদের বয়কট করে রেখেছে। এখনও পর্যন্ত একজন শিশুকেও পোলিও দিতে পারিনি। গ্রামবাসীদের দাবি প্রশাসনের কর্তাদের গ্রামে আসতে হবে।‘

এদিকে খবর পেয়ে এলাকায় যান নলহাটি ২ নম্বর ব্লকের বিডিও হুমায়ুন চৌধুরী। গ্রামবাসীরা তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। বিডিও বলেন, ‘ওই রাস্তা রেলের। তবু আমরা বলছি দু-এক দিনের মধ্যে ওই রাস্তায় পাথরের গুঁড়ো ফেলে চলাচলের উপযুক্ত করব।‘