রাস্তা পাকা না হওয়ায় ভোট বয়কটের পরিকল্পনা গ্রামবাসীর

214

সাজাহান আলি, পতিরাম: এলাকার দেড় কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা চলাচলের অযোগ্য। দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি-প্রশাসনের কাছে রাস্তাটি পাকা করে দেওয়ার আবেদন জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। তাঁদের থেকে গত কয়েক দশক ধরে শুধু প্রতিশ্রুতি মিলেছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। তাই, আগামী বিধানসভা ভোটের আগে রাস্তা পাকা না হলে ভোট বয়কটের পরিকল্পনা করছেন গ্রামবাসীরা।

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার এই চলাচল অযোগ্য, বেহাল কাঁচারাস্তাটি-বালুরঘাট ব্লকের ১ নম্বর বোল্লা গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন বসন্তহার পাকা রাস্তা থেকে রেললাইন পেরিয়ে পূর্ব মহেশপুর গ্রাম পর্যন্ত। পূর্ব মহেশপুর, স্বজনপুর, বদলপুর সহ বোল্লা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দারা এই কাঁচা রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন।

- Advertisement -

রাস্তা পাকা না হওয়ায় ভোট বয়কটের পরিকল্পনা গ্রামবাসীর| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

পূর্ব মহেশপুর গ্রামের প্রথম অংশে বেশ কয়েকবছর আগে কিছুটা ইট সোলিং করা হলেও তারপর আর কিছু হয়নি বলে অভিযোগ করেন মোমিনুর সরকার। তিনি বলেন, বর্ষায় সময় এই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করতে গিয়ে নরক যন্ত্রণার শিকার হতে হয় বলে দাবি স্থানীয়দের। আরও অভিযোগ, বেহাল রাস্তার কারণে পার্শ্ববর্তী এলাকার মানুষজন এই সমস্ত গ্রামে আত্মীয়তার সম্পর্ক গড়তে চান না। এমন কি বর্ষার সময় অন্যের বাড়িতে বাইক, সাইকেল রেখে আত্মীয়দের গ্রামে ঢুকতে হয়। সঞ্জয় ওরাওঁ নামে আর এক বাসিন্দা বলেন, রাস্তা পাকা করে দেবেন বলে প্রশাসন, মন্ত্রী, জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন দলের নেতারা আমাদের শুধু প্রতিশ্রুতি দিয়ে গিয়েছেন, কাজের কাজ কিছুই করেন নি। এমনকি রাস্তায় ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পের মাধ্যমে রাস্তায় মাটিও ফেলা হয়নি বলে অভিযোগ মাজিদুর সরদারের।
পূর্ব মহেশপুরের বাসিন্দা আসিদুল মোল্লা, ফিরোজ সরদাররা বলেন, আমাদের ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙে গিয়েছে। রাস্তা নির্মাণের দাবি পূরণ না হলে ভোট বয়কটের চিন্তাভাবনাকে শেষ অস্ত্র হিসাবে কাজে লাগাতে হবে।

এই বিষয়ে এলাকার বিধায়ক ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা বলেন, ‘পূর্ব মহেশপুরের রাস্তার বিষয়টি আমি জানি। রাস্তা পাকা করে দেওয়ার কথা দিয়েছিলাম। বেশ কয়েকবার মিটিংও করেছি। কিন্তু এলাকার মানুষ রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানোয় বিষয়টি জেলাশাসক দেখছেন, আমার হাতে নেই।’