মেলেনি ত্রাণের ত্রিপল, গ্রাম পঞ্চায়েত দপ্তরে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

196

চাঁচল: ইয়াস পরবর্তীকালে ত্রাণের ত্রিপল পেতে পঞ্চায়েত দপ্তরে আবেদন জানিয়েছিলেন অনেকেই। যদিও সময় পেড়িয়ে গেলেও ত্রিপল হাতে পাননি অনেকেই। ঘটনায় স্বজন পোষণের অভিযোগ তুলে বৃহস্পতিবার চাঁচলের অলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতে দপ্তরে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভে শামিল হলেন শতাধিক গ্রামবাসী। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যরা। অন্যদিকে, গ্রামবাসীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন চাঁচল-১ বিডিও সমীরণ ভট্টাচার্য।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে টানা বৃষ্টির জেরে একাধিক কাচা বাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হয় অলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। পরবর্তীতে ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয়ে আবেদন করেছিলেন অনেকেই। আবেদন পরবর্তীকালে এদিন ত্রিপল বিলির কথা ছিল। সেই মোতাবেক প্রাপকদের লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন অনেকেই। যদিও খানিক বাদে জানতে পারেন আবেদনকারীদের তালিকায় নাম নেই শতাধিক গ্রামবাসীদের। এরপরেই বিক্ষোভে শামিল হন তাঁরা।

- Advertisement -

এবিষয়ে এক গ্রামবাসী সাবেরা বেওয়া অভিযোগ করে বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে ঘর ভেঙেছে। ত্রিপলের জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু সারাদিন লাইনে দাড়িয়ে থেকেও পাইনি ত্রিপল। পঞ্চায়েত অফিস থেকে জানানো হয়েছে তালিকায় নাম নেই।’ ঘটনা প্রসঙ্গে তাঁর অভিযোগ, ত্রিপল বিলি স্বজনপোষন করা হচ্ছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে পঞ্চায়েত সদস‍্য নজরুল ইসলাম বলেন, ‘কে বা কারা উস্কানি দিয়ে পঞ্চায়েতের বদনাম করার ষড়যন্ত্র করছে। তাঁর কথায়, মোট ১৪টি গ্রামের প্রায় চারশো আবেদন পত্র জমা পড়েছে। পঞ্চায়েতের তরফে কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে তদন্ত করেছেন। মোট ৯৪ জনের নাম এসেছে তালিকায়। এদিন কেবল তাদেরই ত্রিপল বিলি করা হয়।’