সিরাজের ক্ষমতায় সন্দেহ নেই কোহলির

লিডস : উল্কার গতিতে উত্থান।

একেবারে এলাম, দেখলাম, জয় করলাম। স্যার ডন ব্র‌্যাডম্যানের দেশে অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখিয়েছিলেন। আগুন ঝরাচ্ছেন চলতি বিলেতের মাটিতেও। হায়দরাবাদ-এক্সপ্রেসের যে সাফল্য ক্রিকেটমহলকে অবাক করলে, বিরাট কোহলি সেই দলে পড়েন না।

- Advertisement -

সিরাজ-বন্দনায় বিরাটের দাবি, ওর দুরন্ত উত্থানে আমি মোটেই অবাক নই। ওকে খুব সামনে থেকে দেখছি। স্কিল তো ছিলই। অস্ট্রেলিয়ার সাফল্য ওর আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। ও জানে, ম্যাচের যেকোনও পরিস্থিতিতে যেকোনও ব্যাটসম্যানকে আউট করতে পারে। আর এই বিশ্বাসই ওকে অন্য উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে। যার প্রতিফলন দেখতে পাচ্ছি আমরা।

ভারতীয় দলকে ভরসা জোগাচ্ছে ওপেনিং জুটিও। সিরিজ শুরুর আগে রোহিত শর্মার পার্টনার কে হবেন, তা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়েছে। যদিও একের পর এক চোটআঘাত লোকেশ রাহুলের সামনে দরজা খুলে দেয়। সুযোগ কাজে লাগিয়ে ক্রিকেট মক্কায় ম্যাচের সেরা রাহুল। রোহিতও অভিজ্ঞতার ফসল তুলছেন।

তৃতীয় টেস্টের আগের দিন ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট বলেন, বিদেশে ওপেনিং কম্বিনেশন গুরুত্বপূর্ণ। রাহুল-রোহিত যেভাবে খেলছে, এককথায় দুর্দান্ত। আশাবাদী, বাকি সিরিজেও এটা চালিয়ে যাবে। দুটো টেস্টেই বাকিদের জন্য মঞ্চ তৈরি করে দিয়েছে। ওদের ভালো শুরুটা দলের মনোবলও বাড়িয়ে দেয়।

উইনিং কম্বিনেশন ধরে রাখবেন নাকি, টার্নিং পিচের ভাবনা বাড়তি স্পিনার? জট এখনও খুলতে পারেননি। পিচের হালহকিকতের কাল সকালে ফের দেখে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। কোহলির কথায়, সত্যি কথা বলতে পিচ দেখে আমরা বেশ অবাকই। এরকম হবে ভাবিনি। আরও ঘাস থাকবে ভেবেছিলাম। ১২ জনের দল মোটামুটি রেডি। কাল আরও একবার পিচ দেখে সঠিক কম্বিনেশন বেছে নেওয়া হবে।