ভলিবলে নজর কাড়ছে রায়গঞ্জের কোচিং ক্যাম্পের মেয়েরা

202

রায়গঞ্জ: সকাল হতেই সবুজ মাঠে ভলিবল হাতে নিয়ে দেখা যায় তাদের। এদের কারও বয়স ১৪, কেউ বা অষ্টাদশী। বল নিয়ে দৌঁড়ে বেড়ায় রাধিকা, নাসরিন, জয়া, শ্রাবণী, আফসান, মৌসুমীরা। দেশবন্ধু পাড়ায় মেয়েদের ভলিবল খেলতে দেখে পথচারীদের অনেকেই থমকে যান।

রায়গঞ্জের কাঞ্চনপল্লির দেশবন্ধু স্পোর্টিং ক্লাবের মাঠে ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েরাও সারাবছর অনুশীলন করে। শুধু রায়গঞ্জ নয়, জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মেয়েরা এখানে এসে আবাসিক অনুশীলন করে থাকে। মাঝেমধ্যে এখানে অনুষ্ঠিত হয় ভলিবল টুর্নামেন্ট। আগামী ৮ মার্চ নারী দিবস। তার আগে গত ৪ মার্চ থেকে ৬ মার্চ পর্যন্ত এখানে চলছে বিশেষ কোচিং ক্যাম্প। জেলার বিভিন্ন ব্লক থেকে প্রায় ৫০ জন মেয়ে কোচিং নিতে এসেছে এখানে। কলকাতা থেকে এসেছেন কোচ আনসার উদ্দীন মোল্লা। তাঁর তত্ত্বাবধানে কোচিং নিচ্ছে ছেলেমেয়েরা। নারী দিবসের আগের দিন অর্থাৎ ৭ মার্চ ডিস্ট্রিক্ট ভলিবল ও বাস্কেটবল অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে এখানে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্ট। জেলার ১০টি দল অংশ নেবে। তার আগে কোচিং ক্যাম্পের মাঠে চলছে জোড় কদমে অনুশীলন। কেউ এসেছে কালিয়াগঞ্জ থেকে, কেউ বা এসেছে বাঙ্গালবাড়ি, হেমতাবাদ, ইটাহার, করণদিঘি থেকে। সকাল থেকে শুরু হয়েছে ক্যাম্প। চলবে দুপুর পর্যন্ত। মেয়েরা যে কোনও অংশে কম নয়, তা মাঠে গেলেই টের পাওয়া যাবে।

- Advertisement -

জেলা ভলিবল ও বাস্কেটবল অ্যাসোসিয়েশনের তরফে অরুপ ঘোষ বলেন, ‘সারাবছর এখানে অনুশীলন চলে। সারা জেলায় প্রায় ১২টি জায়গায় অনুশীলন করে থাকে ছেলেমেয়েরা। ওই সমস্ত ছেলেমেয়েদের মধ্যে যাদের একটু প্রতিভা রয়েছে কলকাতা থেকে ইন্ডিয়া টিমের ও স্পোর্টস কাউন্সিলের কোচেরা এসে তাদের এখানে আবাসিক কোচিং দেন। আগামী ৭ মার্চ এই মাঠে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্ট। ছেলেদের পাশাপাশি বেশি সংখ্যক মেয়েদের টিম যাতে অংশ নেয় তার প্রস্তুতি চলছে।’

কোচ আনসার উদ্দীন মোল্লা বলেন, ‘পিছিয়ে থাকা জেলা ঠিকই, কিন্তু এখানকার ছেলেমেয়েদের যথেষ্ট প্রতিভা রয়েছে। তারা কলকাতার কাছাকাছি না থাকায় অনেক সুযোগ থেকে বঞ্চিত। ঠিকমতো কোচিং পেলে তারাও ভালো জায়গায় যেতে পারবে। কোচিং ক্যাম্পে অংশ নেওয়া জয়া পাসমান, জবা বর্মন, রজিনা খাতুন, আফসান খাতুন, কারিমা খাতুন, রচনা প্রামাণিকদের এখন একটাই লক্ষ্য, ভলিবলে জেলাকে সামনের সারিতে নিয়ে যাওয়া এবং শেরার শেরা শিরোপা অর্জন করা।’