সংবাদপত্র নিয়ে গুজব রুখতে পথে নামল স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা

258

জিষ্ণু চক্রবর্তী, গয়েরকাটা : সংবাদপত্র থেকে যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কোনও সম্ভাবনা নেই, সেই বিষয়ে আমজনতাকে সচেতন করতে এগিয়ে এল ধূপগুড়ি ব্লকের আরও একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি লকডাউন পিরিয়ডে গ্রামবাসীরা যাতে সংবাদপত্র পাঠ থেকে বিরত না থাকেন, সেজন্য তাঁদের হাতে বিনামূল্যে সংবাদপত্র পৌছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

বুধবার থেকে ধূপগুড়ি ব্লকের দুরামারির ভারতীয় নারী বিকাশ ট্রাস্ট-এর তরফে এই কাজ শুরু হয়। এদিন সংস্থাটি ৫০টি ‘উত্তরবঙ্গ সংবাদ’ কিনে তা গ্রামবাসীদের মধ্যে বিতরণ করে। লকডাউন চলাচকালীন প্রতিদিন তারা ৫০টি করে সংবাদপত্র এভাবেই মানুষের কাছে পৌঁছে দেবেন বলে জানিয়েছেন। এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

- Advertisement -

লকডাউনের মাঝে পাঠকদের কাছে সংবাদপথ পৌঁছানো নিয়ে সমস্যা দেখা গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে সেভাবে সংবাদপত্র পৌঁছাচ্ছে না। আবার, গ্রামবাসীদের মধ্যে অনেকের এমন ধারনাও প্রচলিত আছে যে, সংবাদপত্র থেকে করোনা ভাইরাস ছড়াতে পারে। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সহ একাধিক বৈজ্ঞানিক সংস্থা  সংবাদপত্র থেকে এই ভাইরাস ছড়ানোর কোনো সম্ভাবনাই নেই বলে বার বার দাবি করা করেছে।

সংস্থার কর্ণধার আমীর হুসেন জানান, এই সময়ে দেশ ও রাজ্যের খবর জানতে সংবাদপত্র পড়া খুব জরুরী। তাই গ্রামবাসীদের কাছে সংবাদপত্র পৌঁছে দেওয়া এবং তাঁদের মধ্যে এই ভ্রান্ত ধারনা ভাঙতে তারা উদ্যোগী হয়েছেন। ৩মে পর্যন্ত প্রতিদিন ৫০টি সংবাদপত্র মানুষের কাছে নিজস্ব উদ্যোগে পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। স্থানীয় শিক্ষক উত্তম মণ্ডল বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার এই উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানাই। দুর্দিনে মানুষের কাছে সংবাদপত্র পৌঁছে দিয়ে তারা খুব ভালো কাজ করেছেন। ’