গান গেয়ে-ঢাক বাজিয়ে দোলের উৎসবে শামিল ভোটপ্রার্থীরা

66

শিলিগুড়ি: ভোটে জেতার হাতিয়ার যে জনসংযোগ তা কে না জানে। আর দোল যে সেই জনসংযোগের কার্যকর মাধ্যম হতে পারে তাও সকলের জানা। তাই ডান-বাম সব প্রার্থীরাই দোলের উৎসবকে জনসংযোগের অন্যতম হাতিয়ার করে নিলেন। এই দিনটি স্বাভাবিক প্রচারই সারলেন খানিকটা অন্যভাবে। কেউ রং মাখলেন, কেউ বা ঢাক বাজালেন আবার কেউ গলা ছেড়ে গান গাইলেন। শিলিগুড়ি মহকুমা জুড়েই বিভিন্ন প্রার্থীর আজকের ভোট প্রচার ছিল আক্ষরিক অর্থেই রঙিন। ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি আসনের তৃণমূল প্রার্থী গৌতম দেব বিভিন্ন সংগঠনের আয়োজিত বসন্ত উৎসবে যোগ দেন। প্রার্থীকে কাছে পেয়ে অনেকেই তাঁকে রং মাখান। গৌতমবাবুও সকলকে দোলের শুভেচ্ছা জানান। পাশাপাশি এদিন ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডে একটি দোলের অনুষ্ঠানে সমবেত সংগীতে গলাও মেলান গৌতমবাবু।

সাধারণ মানুষই হোক বা দলের কর্মী-সমর্থক কারও সঙ্গেই দোল খেলতে পিছিয়ে ছিলেন না শিলিগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শংকর ঘোষও। এদিন দোল খেলতে গিয়ে ঢাক বাজাতে দেখা যায় শংকরকে। পাশাপাশি সাধারণ মানুষের সঙ্গেও রং খেলে জনসংযোগ সেরেছেন তিনি।

- Advertisement -

এদিন দাগাপুরে বসুন্ধরায় বসন্ত উৎসবে উপস্থিত হন মাটিগাড়া-নকশালবাড়ির বিজেপি প্রার্থী আনন্দময় বর্মনও। সেখানে উপস্থিত মানুষজনের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন প্রার্থী। রঙের উৎসবে মেতেই ভোট প্রচার সারতে দেখা যায় ফাঁসিদেওয়া আসনের বিজেপি প্রার্থী দুর্গা মুর্মুকেও। সমর্থকদের দাবি মেনে প্রচারে বেরিয়ে দেদার সেলফিও তোলেন প্রার্থী। রং মেখেই চিরাচরিত ঢঙে প্রচার সারলেন শিলিগুড়ির বিধানসভার হেভিওয়েট সিপিএম প্রার্থী অশোক ভট্টাচার্য। মন্ত্রী রাস্তায় বেরহতেই নাগরিকরা এগিয়ে এসে তাঁকে রং মাখান। সব মিলিয়ে প্রচার-জনসংযোগের পাশাপাশি রংয়ের উৎসবেও মাতোয়ারা ছিলেন ভোটপ্রার্থীরা।