ওয়েব ডেস্ক, ২৩ এপ্রিলঃ  মালদা (উত্তর),  মালদা (দক্ষিণ) ও বালুরঘাট  কেন্দ্রে  তৃতীয় দফার ভোটের শুরুতেই কালিয়াচকে সংঘর্ষ বাধল।  কালিয়াচক ৩ ব্লকের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের গোপালনগরে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে এক মহিলা সহ তিনজন জখম হয়েছে। আহতদের স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভরতি করা হয়েছে।

তিন লোকসভা আসনের একাধিক বুথে ইভিএম খারাপ হয়ে যাওয়ায় এদিন দেরিতে শুরু হয় ভোট।  মালদা (উত্তর) কেন্দ্রের রতুয়ার বাহারল এলাকায় কোনো বুথেই তাদের পোলিং এজেন্টদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ বামেদের। এখানে বুথে বহিরাগতদের আনাগোনার অভিযোগ উঠছে সকাল থেকেই। এখানকার ৭৭ নম্বর বুথে একজনের ভোট অন্যজন দেওয়ায় প্রিসাইডিং অফিসারকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বালুরঘাট লোকসভা আসনের বিজেপি প্রার্থী সুকান্ত মজুমদার বালুরঘাট কবিতীর্থ পাড়ার বুথ নম্বর ৩৯ / ৪৭ কমিউনিটি হলে তাঁর ভোট দিয়েছেন। ভোট দিয়ে বেরিয়ে তিনি অভিযোগ করেন, সোমবার রাত থেকেই বিভিন্ন এলাকায় তাঁদের কর্মী এজেন্টদের ভয় দেখানো হচ্ছে। ওইদিন বিকেলে তপনে তাদের এক কর্মীকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। ভোটের দিন সকালে তাদের কুমারগঞ্জের এক এজেন্টকে ঘেরাও করে রাখা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ  জানান।

সোমবার রাতে দক্ষিণ মালদা কেন্দ্রের কালিয়াচক এলাকায় বোমাবাজির অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস। তাদের দাবি, স্থানীয় একটি বুথের সামনে বানানো অস্থায়ী দলীয় শিবিরে বোমা ছুড়ে পালায় দুই দুষ্কৃতী। ঘটনায় তিন কংগ্রেস কর্মী আহত হন। তাদের সিলাম স্বাস্থ্যকেন্দ্রে  ভরতি করা হয় সেই রাতেই। যদিও এদিন সকালে কালিয়াচকে নির্বিঘ্নেই শুরু হয় ভোট।

কালিয়াচকে গোষ্ঠী সংঘর্ষে জখম তৃণমূল কর্মী।ছবিঃ প্রকাশ মিশ্র