তিস্তাপাড়ের নিজতরফ গ্রামপঞ্চায়েত এলাকা জলমগ্ন, দুর্ভোগ এলাকাবাসীর

136

মেখলিগঞ্জ: বর্ষাকাল শুরু হতেই ফের জলমগ্ন মেখলিগঞ্জ ব্লকের নিজতরফ গ্রাম পঞ্চায়েতের তিস্তানদী সংলগ্ন এলাকা। কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন তাঁরা।

গ্রাম পঞ্চায়েত সূত্রেই জানা গিয়েছে, একদিকে তিস্তার জল অপরদিকে বৃষ্টির জমা জল বাইরে বের হতে না পারার কারণে ৭৬ নিজতরফ এবং ৪০ নিজতরফ এলাকার মানুষ সমস্যায় পড়েছেন। শুক্রবার অবধি এই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ৩০০টি বাড়ি জলমগ্ন হয়ে পড়ে।

- Advertisement -

৪০ নিজতরফ এলাকায় প্রতিবছরই বন্যায় সমস্যা হয়। তবে ৭৬ নিজতরফ এলাকায় এবার নতুন করে সমস্যা তৈরি হয়েছে। তিস্তায় পাড় বাঁধ এবং জয়ী সেতুর এপ্রোচরোড তৈরি ইত্যাদি কারণে এখানকার কয়েকটি এলাকা থেকে জল বের হতে সমস্যা হচ্ছে। তাই বৃষ্টির জল এলাকায় জমে জলমগ্ন হয়ে পড়ছে এলাকা। যার ফলে সমস্যা পড়েছেন এলাকাবাসী। যদিও এই বিষয়ে নিয়মিত খোঁজখবর রাখা হচ্ছে এবং বিস্তারিত তথ্য দ্রুততার সঙ্গে ব্লক এবং মহকুমা প্রশাসনের কাছেও পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে নিজতরফ গ্রামপঞ্চায়েতের তরফে জানানো হয়েছে।
শনিবার এই নিয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সুনীল রায় বলেন, ‘এলাকার প্রায় ৩০০টি বাড়ি জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। জল বের হতে পারছে না। বিষয়টি ব্লক প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। স্থানীয় মানুষ সাহায্যের দাবি তুলছেন। সে বিষয়েও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, ওই এলাকার অধিকাংশ মানুষই কৃষিকাজ ও পশুপালনের উপর নির্ভরশীল। বৃষ্টিতে এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ায় গবাদি প্রাণীদের নিয়েও সমস্যায় পড়েছেন এলাকাবাসী। স্থানীয় দীনেশ বর্মন, জ্যোৎস্না বর্মনরা জানান, ‘এবার বর্ষা শুরুর থেকেই সমস্যা হচ্ছে। টানা বৃষ্টি হলেই অনেকের ঘরে জল ঢুকে পড়ছে। পানীয় জলের সমস্যা হচ্ছে।

তিস্তা নদী সংলগ্ন জলমগ্ন এলাকার বিভিন্ন মানুষের দাবি, নিকাশি সমস্যার স্থায়ী সমাধান করা হোক। এই বিষয়ে তাঁরা গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষকেও জানিয়েছেন। গ্রাম পঞ্চায়েত দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে, তারা ব্লক প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। গবাদি প্রাণীর সমস্যার কথাও জানানো হয়েছে। আপাতত সেখান থেকে প্রাথমিকভাবে কিছু ত্রিপল পাঠানোর আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে। এই বিষয়ে মেখলিগঞ্জের বিডিও সাঙ্গে ইউডেন ভুটিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে।