মাহিভাইয়ে জন্য গুলি খেতেও প্রস্তুত রাহুল

লন্ডন : ভারতের একটা দল বিলেত সফরে।

দ্বিতীয় দল জোড়া লিমিটেড ওভারের সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কা। না থেকেই দুই দলের মধ্যেই ভীষণভাবে রয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি! শ্রীলঙ্কাগামী বিমানে ওঠার আগে কয়েকদিন আগে ভুবনেশ্বর কুমার তার কেরিয়ারে এমএসের অবদান, প্রভাবের কথা শুনিয়েছিলেন।

- Advertisement -

আজ লোকেশ রাহুলের গলায় সেই মাহি-আচ্ছন্নতা। বিরাট ব্রিগেডের সঙ্গে লন্ডন সফররত উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানের দাবি, ক্যাপটেন শব্দটা কানে এলে প্রথম যে নামটা মনে আসে, তা হল মহেন্দ্র সিং ধোনি। যার জন্য নাকি গুলি খেতেও প্রস্তুত তিনি!

এমএসডিকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়ে এক সাক্ষাত্কারে লোকেশের দাবি, আমাদের প্রজন্মের কাছে কেউ যখন অধিনায়ক-এর কথা বলে, সবার মনে প্রথমে এমএস ধোনির নামটাই আসে। আমরা সবাই ওর নেতৃত্বে দীর্ঘদিন খেলেছি। বড়ো আসরে সাফল্য রয়েছে মাহিভাইয়ের। দেশের হয়ে ওর অবদান অবিশ্বাস্য। তবে একজন অধিনায়কের সবচেয়ে বড়ো প্রাপ্তি সতীর্থদের সম্মান, শ্রদ্ধা। যাঁরা ওর নেতৃত্বে খেলেছি, প্রত্যেকে মাহিভাইয়ের জন্য গুলি খেতে দুবার ভাববে না।

রাহুলের মতে এমএস সবার জন্য অনুপ্রেরণা। যাঁর দেশের প্রতি আবেগ, অনুকরণযোগ্য। বলেন, মাহিভাইয়ের থেকে শিখেছি সাফল্য-ব্যর্থতার মধ্যে কীভাবে নিজেকে ঠিক রাখতে হয়। সবকিছুর আগে দেশকে প্রাধান্য দিত মাহিভাই। এককথায় যা অবিশ্বাস্য।

আর বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলি? রাহুলের মতে, সতীর্থদের কীভাবে একশো থেকে দুশোতে নিয়ে যেতে হয়, তা বিরাট জানে। লোকেশ বলেন, কোহলির নেতৃত্বে খেলা অন্যরকম অভিজ্ঞতা। অসম্ভব আবেগপ্রবণ। কোনও ক্রিকেটারের যদি ১০০ হয়, ও জানে কীভাবে তার থেকে ২০০ শতাংশ বের করতে হয়। দলের বাকি দশজনকে দুশোতে পৌঁছে দেওয়ার অদ্ভুত ক্ষমতা রয়েছে বিরাটের মধ্যে।