উত্তরবঙ্গে প্রবল বৃষ্টি, জলমগ্ন বিভিন্ন এলাকা, পার্বত্য এলাকায় ধসের আশঙ্কা 

602
Ayusman Chakraborty File Photo

উত্তরবঙ্গ ব্যুরো: গত কয়েকদিন ধরেই প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে উত্তরবঙ্গে। যদিও এমনটাই পূর্বাভাস ছিল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের।

মৌসুমী অক্ষরেখা অতি সক্রিয় রয়েছে। মৌসুমী অক্ষরেখার পূর্বাংশ উত্তরবঙ্গের দিকে সরে গিয়েছে। এর প্রভাবেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, কালিম্পংয়ে ৭০ থেকে ২০০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে। ইতিমধ্যেই দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার জেলার বিভিন্ন অংশ বৃষ্টির জেরে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ফুঁসছে নদীর জল। পার্বত্য এলাকায় ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

- Advertisement -

ডায়না নদীর জলস্ফীতিতে বিপন্ন হয়ে পড়েছে জলপাইগুড়ি জেলার নাগরাকাটার কলাবাড়ি বস্তি। কুজি ডায়নার প্রবল আস্ফালনে ধসে যাওয়ার মুখে শতাব্দী প্রাচীন লুকসানের লাল পুল।

প্রবল বৃষ্টিতে মাল ব্লকের মাল, নেওড়ার মতো নদী ফুলে-ফেঁপে উঠেছে। প্রশাসন সার্বিক পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে। বৃহস্পতিবার মাল ব্লকের কুমলাই গ্রাম পঞ্চায়েতের ভোটডাঙ্গা এবং লাগোয়া এলাকার বেশকিছু বাসিন্দারা গোরু চরাতে নেওড়া নদীর চর এলাকায় গিয়েছিলেন। প্রবল বৃষ্টিতে নদী ফুঁসতে শুরু করেছে। রাতে মাল ব্লক প্রশাসনকে খবর দেওয়া হয়। মালের বিডিও বিমান চন্দ্র দাস বলেন, ‘নদীর চর এলাকায় ১৯ জন আটকে পড়েছিলেন। রাত সাড়ে তিনটা নাগাদ ১৯ জনকেই উদ্ধার করে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। আমরা তিস্তা সহ অন্যান্য নদীর পরিস্থিতির উপরেও নজর রাখছি।’ প্রবল বৃষ্টিতে মাল নদীর জলস্রোত ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। নদীর জল মাল শহরের দুই নম্বর ওয়ার্ডের বাঁধে ধাক্কা মারছে। মাল নদীর অন্যধারে মেটেলি ব্লকের বিধাননগর গ্রাম পঞ্চায়েতের সোনাগাছি চা বাগানের বাটাইগোল ডিভিশনেও ব্যাপক ভাঙন ধরেছে। বাটাইগোল বস্তি এবং ঝিরকাধুরা এলাকাতেও ক্ষতি করছে। বাসিন্দারা দুশ্চিন্তায় দিন কাটাচ্ছেন।

বৃষ্টিতে কোচবিহার শহরের কেশব রোড, আরএনএন রোড সহ বেশকিছু জায়গায় রাস্তায় জল জমে যায়। দূর্ভোগে পড়তে হয় নাগরিকদের। নিকাশি ব্যবস্থার বেহাল দশার জন্যই রাস্তায় জল জমছে বলে অভিযোগ। এছাড়াও কোচবিহার জেলার মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের ঘোকসাডাঙ্গা পুরান বাজার এলাকা। জলমগ্ন মেখলিগঞ্জ ব্লকের নিজতরফ গ্রাম পঞ্চায়েতের তিস্তা নদী সংলগ্ন ৪০ ও ৭৬ নিজতরফ এলাকা। গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সুনীল রায় জানান, দুটি এলাকার প্রায় সাড়ে ৩০০ বাড়ি জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ত্রাণের দাবি তুলেছেন এলাকাবাসী। গ্রাম পঞ্চায়েতের তরফে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জলমগ্ন আলিপুরদুয়ার জেলার বিভিন্ন এলাকা। বাড়ির ভিতরে জল ঢুকে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে শিলিগুড়িতেও। পাশাপাশি বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে মালদা সহ দুই দিনাজপুরে।

উত্তরবঙ্গ লাগোয়া দক্ষিণবঙ্গেও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। ভারী বৃষ্টি হতে পারে মালদা, সংলগ্ন মুর্শিদাবাদ, নদিয়া ও বীরভূমে। দক্ষিণবঙ্গেও ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। মৌসুমী অক্ষরেখার টানে প্রচুর জলীয় বাষ্প বঙ্গোপসাগর থেকে ঢোকায় দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থাকবে।