শৈত্য প্রবাহের দাপট বাড়ছে উত্তর ভারতে

204

নয়াদিল্লি: দিল্লিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমেছে ৩.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। কনকনে ঠাণ্ডা পরবে পশ্চিমবঙ্গেও। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার কলকাতার তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রির কাছাকাছি রয়েছে। বর্ষবরণের দিন ফের ১১ ডিগ্রিতে নামতে পারে তাপমাত্রা। এখনও পর্যন্ত মরশুমে শহরের শীতলতম দিনে পারদ নেমেছে ১১.২ ডিগ্রিতে। স্বাভাবিক ভাবেই জেলায় তাপমাত্রা থাকবে আরও কম।

বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২.৬ ডিগ্রি। বরফ পড়েছে জম্মু-কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ডে। কনকনে ঠাণ্ডায় কাঁপছে গোটা উত্তর ভারত। আবহাওয়া দপ্তর জানাচ্ছে, বৃহস্পতিবার বা শুক্রবার নাগাদ জোরালো উত্তুরে-পশ্চিমি বাতাস বইবে বাংলায়। নামবে তাপমাত্রা। আরও একটি পশ্চিমি ঝঞ্ঝা আসছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়াবিদরা। তার প্রভাবে ৩ জানুয়ারি থেকে উত্তর ভারতেই হিমেল বাতাসের দাপট কমবে। বৃষ্টি হতে পারে দিল্লিতে। স্বাভাবিক ভাবেই, তার প্রভাব পড়বে পূর্ব ভারতেও।

- Advertisement -

বর্ষবরণের রাতে পারদ নামবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়াবিদরা। কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় ইতিমধ্যেই ভারী তুষারপাত শুরু হয়েছে। ফলে কাশ্মীরের জনপ্রিয় এলাকাগুলিতে পর্যটকদের ভিড় শুরু হয়েছে। সকাল ৭টা নাগাদ, শ্রীনগরে বৃষ্টি ও তুষারপাত হয়েছে। পুলওয়ামা, গুলমার্গ, পহেলগাঁও ও বুদগাম জেলাতেও এদিন তুষারপাত হয়েছে। পহেলগাঁওতে তামপাত্রা মাইনাস ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, গুলমার্গে মাইনাস ৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কুপওয়ারায় মাইনাস ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোকেরনাগে মাইনাস ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা।

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, হিমাচল প্রদেশেও পারদ নামবে ক্রমশ। বর্ষশেষের রাতে মাইনাস ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে নেমে যাবে। কেলং, কালপা, ডালহৌসি, কুফরিতে এখনই হিমাঙ্কের নীচে। লাহুল-স্পিতিতে এবছর তাপমাত্রা নেমে দাঁড়িয়েছে মাইনাস ১২.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ০.৬ মিমি তুষারপাতের জেরে গোটা এলাকা এখন বরফ রাজ্যে পরিণত হয়েছে।