বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রাজ্যের একাধিক জেলায়

115
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: উত্তরবঙ্গের পার্বত্য জেলাগুলিতে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সঙ্গে ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে হালকা ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ২৪ ঘণ্টায় দার্জিলিং কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার এই জেলাগুলির কিছু অংশেও বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা। বিক্ষিপ্ত হালকা দু-এক পশলা বৃষ্টি হতে পারে উত্তরের অন্য জেলাগুলিতেও। এক ধাক্কায় স্বাভাবিকের চেয়ে ৩ ডিগ্রি কমল তাপমাত্রা। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, শনিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের চেয়ে ৩ ডিগ্রি কম। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৯.৯ ডিগ্রি। যা স্বাভাবিকের চেয়ে ২ ডিগ্রি কম। বাতাসে সর্বাধিক এবং সর্বনিম্ন জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ৯২ এবং ৫১ শতাংশ।

আবহাওয়া দপ্তর জানাচ্ছে, রবিবার রাজ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আংশিক মেঘলা থাকবে আকাশ। এদিন শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সঙ্গে হালকা ঝোড়ো হাওয়ার পূর্বাভাস। আগামী কয়েকদিন দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়বে কিন্তু রাতের তাপমাত্রা খুব একটা বেশি পরিবর্তন হবে না। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে পারে রাজ্যের পশ্চিমের জেলাগুলিতে। বাঁকুড়া পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, পূর্ব বর্ধমান, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুরে বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি। বিক্ষিপ্তভাবে বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণবঙ্গের অন্যান্য জেলাতেও।

- Advertisement -

আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, ১৯ মার্চ অবধি আবহাওয়ায় বিশেষ কোনও পরিবর্তন হবে না। সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যথাক্রমে ৩৫ ডিগ্রি এবং ২৪ ডিগ্রি থাকার কথা। দক্ষিণ ভারতের কয়েকটি রাজ্য ছাড়া সারা ভারতেই অব্যাহত থাকবে গ্রীষ্মের দাপট। উত্তর, উত্তর-পশ্চিম, উত্তর-পূর্ব এবং পূর্ব ভারতের কিছু রাজ্যে স্বাভাবিকের তুলনায় অনেকটা বেশি থাকবে তাপমাত্রা। এমনকি হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত রাজ্যগুলিতেও স্বাভাবিকের তুলনায় অনেকটা বাড়বে তাপমাত্রা। এদিকে পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাবে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি ও হালকা ঝোড়ো হাওয়া বইবে দেশের উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতেও। অসম, মেঘালয়,মনিপুর, অরুণাচল প্রদেশ, সিকিম, মেঘালয়, মিজোরাম ও ত্রিপুরাতে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বিহার, ঝাড়খন্ড এবং ওড়িশাতেও বৃষ্টির সম্ভাবনা।