পশ্চিম বর্ধমানের ৯টি আসনে নির্বিঘ্নে চলছে ভোটগ্রহণ

41

আসানসোল: পশ্চিম বর্ধমান জেলার ৯টি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বিঘ্নে চলছে ভোটগ্রহণ। সোমবার সপ্তম দফার ভোটে প্রথম দু’ঘন্টায় ভোট পড়ল ১৭ শতাংশের কিছু বেশি। ভোটগ্রহণকে ঘিরে জেলার ৯টি কেন্দ্রের সব বুথেই আঁটোসাটো নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে।

জেলা নির্বাচন দপ্তর সূত্রে জানানো হয়, প্রথম দু ঘন্টায় গড়ে জেলায় ভোট পড়েছে ১৭.২৪ শতাংশ। তার মধ্যে সবচেয়ে কম ভোট পড়েছে পাণ্ডবেশ্বরে। সেখানে ১১ শতাংশ ভোট পড়েছে। এদিন সকালে আসানসোলের চেলিডাঙ্গার বুথে ভোট দেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা আসানসোল উত্তরের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী মলয় ঘটক।

- Advertisement -

পশ্চিম বর্ধমানের ৯টি আসনে নির্বিঘ্নে চলছে ভোটগ্রহণ| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

মলয়বাবু ভোট দেওয়ার পর বিজেপি প্রার্থী কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে জানান, কৃষ্ণেন্দুবাবু এসে তৃণমূল কংগ্রেসের এজেন্টের নাম জানতে চাইছেন। পাশাপাশি তিনি জানান, কেন্দ্রীয় বাহিনীও ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। যদিও বিজেপি প্রার্থী সেই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘মন্ত্রীর পাড়ার বুথে এতদিন বিজেপির এজেন্টকে বসতে দেওয়া হত না। এবার একজন মহিলাকে আমরা বসিয়েছি। তাকে তৃণমূল কংগ্রেসের এজেন্ট উত্যক্ত করছিল। আমি খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে প্রতিবাদ করেছি।’

অন্যদিকে, আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী অগ্নিমিত্রা পালের অভিযোগ, রানিগঞ্জের বক্তারনগরের একটি বুথে তৃণমূল কংগ্রেসের বুথ এজেন্ট মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি সহ টুপি পড়ে বসেছিলেন। তিনি নির্বাচন কমিশনকে গোটা বিষয়টি জানান। যদিও বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে ১১ গাড়ির কনভয় নিয়ে ঘুরে বেড়ানোর অভিযোগ করেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী সায়নী ঘোষ। একইভাবে রানিগঞ্জে তৃণমূল কংগ্রেসের ক্যাম্প অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। সেখানে অবৈধ জমায়েত ছিল বলে অবিযোগ। এদিন সকালে বেশকিছু বুথে ভোট দেরি করে শুরু হয়। জেলা নির্বাচন দপ্তর জানায়, ইভিএমের কিছু সমস্যার কারণে ভোট দেরিতে শুরু হয়। তবে পরে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।