মনোনয়ন দাখিলের পথে বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতা, মানভঞ্জনে এগিয়ে এল স্ত্রী

110

মালদা: প্রার্থী বদলের দাবিতে একাধিক সময় সুর চড়িয়েছিলেন। যদিও দল তাতে কর্ণপাত করেনি বলে অভিযোগ তুলে দলত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন বিজেপি নেতা নিতাই মণ্ডল। সেই মোতাবেক ঊর্ধ্বতন নেতৃত্বের কাছে ইস্তফা পত্র পাঠানোর পাশাপাশি নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেশের সিদ্ধান্ত নেন। বুধবার মনোনয়ন পেশের কথা। সেই মোতাবেক মনোনয়ন পেশের লক্ষ্যে সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে রওনা দেন তিনি। যদিও শেষ অবধি স্ত্রী’র আবেদনে সারা দিয়ে মনোনয়ন পেশের সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটেন তিনি।

নিতাই মণ্ডল পুরাতন মালদা পঞ্চায়েত সমিতির বিরোধী দলনেতাও বটে। মালদা বিধানসভা ক্ষেত্রে জনপ্রিয়তার নিরিখে প্রার্থী পদের দৌড়ে খীনিক এগিয়েই ছিলেন তিনি। যদিও শেষ অবধি প্রার্থী হিসেবে গোপাল সাহার নাম ঘোষণা করে দল। তাঁর জাতিগত শংসাপত্র ভুয়ো বলে দাবি করেন নিতাই। এনিয়ে নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণও করা হয়। পাশাপাশি প্রার্থী বদলের দাবিতে দফায় দফায় জেলা নেতৃত্বের কাছে দরবার করেন নিতাই ও তাঁর সমর্থকরা। যদিও দলের তরফে প্রার্থী বদল করা হয়নি। ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে এদিন প্রায় হাজার কর্মী-সমর্থক নিয়ে মনোনয়ন পেশ করার উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি।

- Advertisement -

নিতাই মণ্ডলের মনোনয়ন পেশ করতে যাওয়ার বিষয় সামনে আসতেই সাহাপুর শিবমন্দির এলাকায় বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা তাঁর পথ আটকে দেন। রাস্তায় শুয়ে পড়েন অনেকেই। ঘটনায় দু’পক্ষ বচসায় জড়িয়ে পড়ে। অন্যদিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছোন বিজেপির জেলা সভাপতি গোবিন্দচন্দ্র মণ্ডল, মহিলা মোর্চার জেলা সভানেত্রী সুতপা মুখোপাধ্যায়, মহিলা মোর্চার জেলা সম্পাদিকা রুমা মণ্ডল প্রমুখ। রুমা মণ্ডল বিক্ষুব্ধ নেতা নিতাই মণ্ডলের স্ত্রী। দলীয় কর্মী-সমর্থকদের পাশাপাশি নিতাই মণ্ডলকে বোঝাতে তৎপর হন তাঁর স্ত্রী রুমা মণ্ডল। শেষ অবধি মনোনয়ন পেশের সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। স্বস্তি ফিরত গেরুয়া শিবিরে।

বিজেপির জেলা সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্রমণ্ডল বলেন, ‘মালদা বিধানসভায় প্রার্থী নিয়ে নিতাই মণ্ডল ও তাঁর অনুগামীদের অভিমান ছিল। আজ তিনি মনোনয়ন পেশ করতে গেলে বিজেপি কর্মীরা তাকে নিরস্ত করতে চান। তিনি মনোনয়ন দিলে সংসার ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছিল। আমিও তাকে সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জন্য অনুরোধ করি। তিনি আমাদের অনুরোধ রেখেছেন।

অন্যদিকে নিতাই মণ্ডল জানান, ‘মালদা বিধানসভার বহু মানুষ ঘোষিত প্রার্থীকে চাইছিলেন না। তারা আমাকে নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেশ করতে বলেন। সেই মোতাবেক আমি আজ মনোনয়ন পেশ করতে গেলে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা আমাকে বাধা দেন ও অনুরোধ করেন মনোনয়ন দাখিল না করার জন্য। দল আমাকে যোগ্য সম্মান দিয়ে কাজ চালিয়ে যেতে বলেছে। তাই মনোনয়ন দাখিল করার সিদ্ধান্ত মুলতুবি রাখলাম।’ যদিও দলীয় প্রার্থী গোপাল সাহার হয়ে নির্বাচনি প্রচারে ঝাঁপেবেন কি না তা অবশ্য় খোলসা করেননি তিনি।