বাংলায় ব্যবসা করার সুবিধা গুজরাতের থেকে বেশি, জানাল কেন্দ্র

899

নয়াদিল্লি : সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানা করতে না পেরে গুজরাতের সানন্দে চলে গিয়েছিলেন রতন টাটা। বাংলায় ব্যবসা করা কতটা সুবিধাজনক, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল সে সময়। অন্যদিকে, গত কয়েক বছরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে একাধিক বিজেপি নেতা উন্নয়নের ক্ষেত্রে গুজরাত মডেলের কথা বলে এসেছেন। কিন্তু কেন্দ্রের রিপোর্ট বলছে, এখন গুজরাতের থেকে বাংলায় ব্যবসা করা সুবিধাজনক। কোন রাজ্যে ব্যবসা করার সুযোগ-সুবিধা কত বেশি, তা নিয়ে শনিবার একটি তালিকা প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই তালিকায় তাতে ৯ নম্বরে নাম আছে তৃণমূল কংগ্রেস শাসিত পশ্চিমবঙ্গের। ১০ নম্বরে নাম আছে বিজেপি শাসিত গুজরাতের।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন শনিবার ‘স্টেট বিজনেস রিফর্ম অ্যাকশন প্ল্যান ২০১৯’ নামে এক রিপোর্ট প্রকাশ করেন। তাতে বিভিন্ন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের র‍্যাংকিং করা হয়েছে। রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কীভাবে ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নতির জন্য চেষ্টা করছে, কোথায় উদ্যোগপতিরা কত সহজে বিনিয়োগ করতে পারছেন, তার মূল্যায়নের ভিত্তিতে তাদের র‍্যাংকিং করা হয়েছে। ওই তালিকায়  শীর্ষস্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। অর্থাৎ অন্ধ্রে ব্যবসা করার জন্য সবচেয়ে অনুকূল পরিবেশ রয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশ। ২০১৮ সালে দ্বাদশ স্থানে ছিল যোগীরাজ্য। তৃতীয় স্থানে রয়েছে তেলেঙ্গানা। তালিকায় এর পরে আছে মধ্যপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, ছত্তিসগড়, হিমাচল প্রদেশ, রাজস্থান। তার পরে বাংলা ও গুজরাত। রাজধানী দিল্লি রয়েছে দ্বাদশ স্থানে। যে সব মাপকাঠিতে রাজ্যগুলির র‍্যাংকিং করা হয়েছে, সেগুলির মধ্যে রয়েছে শ্রম বিধি, নির্মাণ পারমিট, পরিবেশ আইন, তথ্য পাওয়ার সুবিধা, জমি পাওয়ার সুবিধা ও সিঙ্গল উইন্ডো সিস্টেম।

- Advertisement -

রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়াল, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী হরদীপ সিং পুরি এবং সরকারের উচ্চপদস্থ অফিসারদের উপস্থিতিতে অর্থমন্ত্রী রাজ্যগুলির র‍্যাংকিং প্রকাশ করেন। রেলমন্ত্রী বলেন, কোন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল কেমন সংস্কার করেছে, তার ভিত্তিতে তাদের র‍্যাংকিং করা হয়েছে। ভারত সরকার চাইছে বিভিন্ন ব্যবসার জন্য সিঙ্গল উইন্ডো সিস্টেম চালু করতে। তার ফলে ব্যবসায়ীরা দ্রুত ও কম খরচে কাজ করতে পারবেন।