বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে কোমরে দড়ি পড়িয়ে ভাইপোকে ঘোরাব: সৌমিত্র খাঁ

299

বর্ধমান: তৃণমূল কংগ্রেসের যুবনেতা তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করে ফের চূড়ান্ত হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। শুক্রবার পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষে দলের সেবা সপ্তাহ কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের পর বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় আসবেই। আমি এখন থেকেই প্রতিজ্ঞা করে নিয়েছি। বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর ভাইপোর কোমরে দড়ি পরিয়ে গোটা রাজ্যে ঘোরাবই। একই সাথে সৌমিত্র খাঁ এদিন খণ্ডঘোষ থানার ওসিকে উদ্দেশ্য করেও হুঁশিয়ারি দিয়ে যান।‘

বিজেপির রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি তথা সাংসদ সৌমিত্র খাঁ এমন হুঁশিয়ারি দিয়ে গিয়েছেন জেনে ক্ষোভে ফুঁসছেন খণ্ডঘোষের তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপি যুব মোর্চার কর্মীরা এদিন খণ্ডঘোষের শশঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের মাশিলা চন্ডিপুরে শীতবস্ত্র প্রদান কর্মসূচীর আয়োজন করে। সেই কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেন। কোমরে দড়ি পরিয়ে ভাইপোকে সারা রাজ্যে ঘোরাবেন এইটুকু বলেই সৌমিত্র বাবু খান্ত হননি।
তিনি খণ্ডঘোষ থানার ওসিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘যদি খণ্ডঘোষ ব্লকের কোন ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মীদের গায়ের একটুকু আঁচড় লাগে তাহলে ওসিকে কম্পালসারি ওয়েটিংয়ে থাকতে হবে।‘

- Advertisement -

তারপর ১০ বছর পেরিয়ে গেলেও আপনাকে রাস্তায় রাস্তায় ঘোরানো হবে। তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বকে কটাক্ষ করে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেস বলে এখন আর কিছু নেই। তৃণমূলের ঘর ভেঙে গেছে। শুধু কিছু হোঁদল পুলিশ অফিসার তারা চেষ্টা করছে রাজ্যে যাতে তৃণমূল থাকে। তাঁরা এতো পয়সা জমিয়েছে।‘

৪০০ সিএফটির বেশি লোড থাকা বালির লরি সড়কপথ দিয়ে চলতে না দিয়ে ওই গাড়ি আটকে দেবার কথা জনগনের উদ্দেশ্য বলেন সৌমিত্র খাঁ। তৃণমূল ও পুলিশকে উদ্দেশ্য করে এতো আক্রমণ শানালেও নিজের স্ত্রী সুজাতা খাঁকে নিয়ে এদিন সৌমিত্র খাঁ একটিও মন্তব্য করেননি।

বিজেপি নেতার এই বক্তব্যকে পাগলের প্রলাপ বলে মন্তব্য করেছেন খণ্ডঘোষ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অপার্থিব ইসলাম। তিনি বলেন, ‘কথাবার্তা শুনে এখন মনে হচ্ছে সৌমিত্র খাঁর মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে। আর রাজ্যে বিজেপির ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন অধরাই থেকে যাবে। ফাঁকা আওয়াজ ছাড়া বিজেপির আর কিছুই সম্বল নেই।‘