গ্রীষ্মের চড়া রোদে গাড়ি রেখে অনেক সমযে আমরা কাজেকর্মে চলে যাই। সেইসময গাড়িগুলো কীরকম জ্বলন্ত চুল্লির মতো গরম হয়ে যায় তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু এরকম অবস্থায একটা গাড়ি তীব্র গরম হতে কতটা সময নেয়? এটা কিন্তু জীবন-মৃত্যুর প্রশ্ন। সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, প্রতিবছর আমেরিকায এইভাবে গ্রীষ্মের রোদে গাড়ির ভেতর বসে গড়ে ৩৭জন শিশুর মৃত্যু হয়। এরকম একটা ভয়ঙ্কর তথ্য জানার পর বিশেষজ্ঞরা গবেষণা করে জানার চেষ্টা করলেন, গরমের সময় বিভিন্ন ধরনের গাড়ি গরম হতে কতটা সময নেয়। গবেষণায যা জানা গেল, সেটা কিন্তু খুবই গুরুতর। ধরুন, গ্রীষ্মকালে একদিন দিনের তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁয়েছ। রোদে আপনার চারচাকার গাড়িটি রেখে আপনি ঢুকেছেন একটি মলে বা মার্কেট কমপ্লেক্সে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এরকম অবস্থায আপনার গাড়ির ভেতরের তাপমাত্রা ৪৭ ডিগ্রি সেলসিযাস হতে সময় নেবে মাত্র এক ঘন্টা। না, এখানেই শেষ নয। সেইসময আপনার গাড়ির ড্যাশবোর্ডের তাপমাত্রা ৬৯ ডিগ্রি এবং স্টিযারিং ৫৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সিট? ৫১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

তবে এরকম গরমের দিনে ছাযায গাড়ি রাখলে অবশ্যই তা একটু কম গরম হবে। কিন্তু সেটাও যথেষ্ট উত্তপ্ত। বাইরের তাপমাত্রা যখন ৩৫ ডিগ্রি সেলসিযাস, তখন ছায়ায় রাখা আপনার গাড়ির ভেতরের গড় তাপমাত্রা এক ঘন্টায ৩৮ ডিগ্রি সেলসিযাসে দাঁড়াবে। আর ড্যাশবোর্ড ৪৮ ডিগ্রি, স্টিযারিং ৪২ ডিগ্রি ও সিট ৪১ ডিগ্রি গরম হবে বলে গবেষকরা জানাচ্ছেন।

অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটির আবহবিদ ন্যান্সি সেলোভার বলেন, গরম হযে যাওযা গাড়িগুলির স্টিযারিংযে হাত রাখলেই মনে হয পুড়ে যাবে। তাহলে ভাবুন তো, ওই গাড়ির ভেতর আপনার ফেরার অপেক্ষায বসে থাকা বাচ্চাটির কী অবস্থা হয?

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই অবস্থায গাড়ির ভেতর থাকলে শিশুদের ক্ষেত্রে অসুস্থ হযে পড়ার সম্ভাবনা প্রবল। কারণ একটানা বেশ কিছুক্ষণ শরীরের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিযাসের বেশি থাকা তাদের জন্য বিপজ্জনক। ক্যালিফোর্নিযা বিশ্ববিদ্যালযে আবহবিদ জেনিফার ভেনোস জানান, শরীরের তাপমাত্রা যদি স্বাভাবিকতার চেযে বেশি থাকে তাকে হাইপারথারমিযা বলে। এই অবস্থায একটানা থাকলে মস্তিষ্কে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।