‘যেখানে ভোট পড়বে না আমার, লাইনও যাবে না,’ তৃণমূল প্রার্থীর বক্তব্যে শোরগোল

114

উত্তরবঙ্গ সংবাদ নিউজ ডেস্ক: নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে দলকে অস্বস্তিতে ফেললেন সপ্তম গ্রামের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তপন দাস। বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হতেই জোর প্রচারে ঝাঁপালেন তিনি। এক নির্বাচজনী প্রচারে তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘যেখানে ভোট পাবেন না তিনি, সেখানে জল পৌঁছাবে না। কোনও কিছুই মিলবে না।’ নির্বাচনী প্রচার পর্বে এহেন বক্তব্যকে ঘিরে রাজনৈতিক মহলে শুরু জোর বিতর্ক। ইতিমধ্যে যা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর শোরগোল পড়ে গিয়েছে। অন্যদিকে, তৃণমূল প্রার্থীর এহেন বেফাঁস মন্তব্যকে হাতিয়ার করে আসরে নেমেছে গেরুয়া শিবির।

নির্বাচনী প্রচার শুরুর আগে পোলবা-দাদপুরের সেনেটে পুজো দেন তপনবাবু। এরপর সরাসরি ভোট প্রচারে ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। অনুগামীদের নিয়ে বাড়ি বাড়ি ভোট প্রচার শুরু দেন। সেসময়ই তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘যেখানে ভোট পড়বে না আমার, বুথ দেখব। লাইনও যাবে না, জলও যাবে না, পরিষ্কার কথা। সব ওই বিজেপিকে দিয়ে করাতে হবে।’

- Advertisement -

দোড়গোরায় ভোট। এমন সময় খোদ তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীর মুখে এহেন কথা শুনে স্তম্ভিত আমজনতা। অন্যদিকে, শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক। পাশাপাশি তৃণমূল প্রার্থীর এহেন মন্তব্যকে সামনে রেখে কোসর বেঁধে আসরে নেমেছে গেরুয়া শিবির। তৃণমূল নেতাদের এহেন মন্তব্যকে কটাক্ষ করে গেরুয়া শিবিরের নেতাদের বক্তব্য, পরাজয় নিশ্চিত জেনেই এহেন মন্তব্য করছেন ওই তৃণমূল নেতা। এদিকে, ওই তৃণমূল নেতার বক্তব্যের ভিডিও ফুটেজ টুটারে তুলে ধরে হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় লেখেন, ‘সপ্তগ্রাম বিধানসভার তৃণমূলের প্রার্থী তপন দাসগুপ্তকে ভোট না দিলে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয়তা লাইট ও জলের ব্যবস্থা বন্ধ করে দেবে জানিয়েছেন। পিসির শিষ্যরা হেরে যাওয়ার ভয় মানুষকে হুমকি দিয়ে ভোট করাতে চাইছে। মানুষ হুমকিকে আর পরোয়া করে না।’

এদিকে, ওই তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীর হয়ে সাফাই গাইতে গিয়ে তৃণমূলের নেতারা স্পষ্ট করেন, তপন দাসের মন্তব্যের অপব্যাখ্যা করা হচ্ছে। তিনি ওই বক্তব্যের মাধ্যমে বোঝাতে চেয়োছিলেন, বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলে পরিষেবা মিলবে না।