রাজ্য পুলিশের পরবর্তী ডিজি কে? শুরু চর্চা

220

কলকাতা: রাজ্যের বর্তমান ডিজি বীরেন্দ্রর কার্যকালের মেয়াদ প্রায় শেষ পথে। আগামী আগস্ট মাসেই তাঁর কার্যকালের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে। সেক্ষেত্রে বীরেন্দ্র পরবর্তীতে ওই পদে কাকে বসানো হবে, তা নিয়ে ধন্দে রাজ্য সরকার। কারণ খোদ মুখ্যমন্ত্রী রাজ্য ক্যাডারের যে আইপিএস অফিসারকে ওই পদে বসাতে চাইছেন, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ পালন করতে গেলে তা সম্ভব নয়। স্বাভাবিকভাবেই ওই পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে রাজ্য কি সিদ্ধান্ত নেয় তা এখন দেখার বিষয়।

সুপ্রিম নির্দেশিকা অনুসারে ডিজি পুলিশ পদে কাউকে নিয়োগ করতে হলে, যেদিন ওই পদটি খালি হওয়ার কথা তার তিন মাস আগে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারকে ওই রাজ্য ক্যাডারের সবচেয়ে প্রবীণ আইপিএসদের দশজনের একটি তালিকা পাঠাতে হবে ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিশনে(ইউপিএসসি)। ইউপিএসসি সেই তালিকা বিচার বিবেচনা করে তিনটি নাম সংশ্লিষ্ট রাজ্যকে পাঠাবে। সেই তিনের একজনকে ডিজি হিসেবে বেছে নিতে পারবে রাজ্য।

- Advertisement -

ইতিপূর্বে আট প্রবীণ আইপিএসকে ডিঙিয়ে পছন্দের অফিসার সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে ডিজি পদে বসিয়ে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু এবার আর রাজ্য সরকারের পক্ষে সে পথে হাঁটা সম্ভব নয়। কারণ দু’বছর আগে সুপ্রিমকোর্টে মামলা করে হেরে যাওয়ায় সেই পথ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। বিশ্বস্ত সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রীর পছন্দের অফিসারকে ডিজি পদে বসানোর পথ পরিষ্কার করতে তাঁর থেকে প্রবীণ বেশ কয়েকজন অফিসারকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল যাতে তারা চাকরি থেকে আগাম অবসর নিয়ে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন কমিশনের সদস্য হয়ে কার্যকালের মেয়াদ শেষেও কাজ করে যেতে পারেন। কিন্তু রাজ্যের সেই প্রস্তাবে তাঁরা রাজি হননি বলে খবর।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশিকা অনুসারে নির্দিষ্ট দিনে যেসব অফিসারদের চাকরির মেয়াদ ছয় মাসের বেশি থাকবে শুধুমাত্র তাঁদের নাম উঠবে তালিকায়। আর ডিজি পুলিশ পদে নিযুক্ত হলে তাদের কার্যকালের মেয়াদ বাড়িয়ে দু’বছর করতে হবে। আর সেই কারণেই বর্তমানে রাজ্য পুলিশের সিনিয়র অফিসারদের দশ জনের মধ্যে যারা আছেন তাঁদের মধ্যে কলকাতার নগরপাল সোমেন মিত্র সহ কয়েকজন বাদ পড়ছেন।
তালিকায় যারা রয়েছেন তাদের মধ্যে এক নম্বরে রয়েছেন ১৯৮৬ ব্যাচের মনোজ মালব্য, ১৯৮৭ ব্যাচের সুমন বালা সাহু, একই ব্যাচের নীরজ নয়ন, অধীর শর্মা এবং গঙ্গেশ্বর সিং অন্যদিকে ১৯৮৮ ব্যাচের বি নাগা রমেশ, হরমনপ্রীত সিং, বিবেক সহায় প্রমূখ।

উপরোক্ত অফিসারদের মধ্যে এক নম্বরে থাকা মনোজ মালব্য হলেন মদনমোহন মালবের প্রপৌত্র। ইতিপূর্বে তিনি রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলা পুলিশ সুপার পদে কাজ করেছিলেন। তারপর ডেপুটেশনে কেন্দ্রীয় সরকারের অধীন এয়ারপোর্ট সিকিউরিটি দপ্তরের উচ্চ পদের কাজ করেছেন। ওই পদে কাজ করার সময় তার কিছু কাজকর্ম নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়। ইউক্রেনের এক মহিলার সঙ্গে তার ছবিকে ঘিরে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। এর পরপরই তিনি রাজ্য পুলিশের ফিরে আসেন। তারপরে যে দুজনের নাম রয়েছে তারা দুজনেই কেন্দ্রীয় সরকারের ডি জি পদমর্যাদার পদের জন্য এমপ্ল্যানেলড আছেন। শুধু তাই নয় তারা দুজনেই বেশ কিছুদিন ডেপুটেশনে বেশ কয়েকবছর সিবিআই তে কাজ করে এসেছেন। সুমন বালা সাহু সিবিআই-এর কলকাতা দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত যুগ্ম আধিকারিক পদে বেশ কয়েক বছর কাজ করেছেন। অপরদিকে নীরজ নয়ন ও সিবিআইয়ের আইজি পদমর্যাদার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে যেমন কাজ করেছেন, তেমনি বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ মামলার ও তদন্তের দায়িত্বেও ছিলেন।