দেড় ঘণ্টায় স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড হাতে পেল জখম যুবকের পরিবার

142

কলকাতা: পথ দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম ছেলে। চিকিৎসায় প্রয়োজন প্রায় ২ লক্ষ টাকা। ঘটনায় দিশেহারা হয়ে পড়ে পরিবার। সেই খবর চাউর হতেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। মাত্র দেড় ঘণ্টা সময়ের মধ্য়েই স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড তৈরি করে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হল জেলা প্রশাসনের তরফে। ঘটনায় আপ্লুত সকলেই।

পরিবার সূত্রে খবর, ওই কিশোরের নাম ভীম শর্মা। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়্গপুর শহরের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা সে। গত মঙ্গলবার বাইক দুর্ঘটনার জেরে গুরুতর জখম হয় সে। প্রয়োজন জটিল অস্ত্রোপচার। সেক্ষেত্রে খরচ হবে প্রায় ২ লক্ষ টাকা। যদিও সেই খরচ জোগার করতে নাভিশ্বাস ওঠে ওই কিশোরের পরিবারে। সমস্যা সমাধানে ওই কিশোরের মা অনু শর্মা দেখা করেন ওয়ার্ডের তৃণমূল কর্মী সঞ্জয়বাবুর সঙ্গে। তাঁর সূত্র ধরেই খড়্গপুরের মহাকুমা শাসকের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। সব শুনে মাত্র দেড় ঘণ্টা সময়ের মধ্যেই স্বাস্থ্যসাথী’ কার্ড তুলে দেন মহকুমা শাসক।

- Advertisement -

কিশোরের মা অনু শর্মা জানিয়েছেন, চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড থাকলে নিঃখরচায় চিকিৎসা সম্ভব। যদিও সেই কার্ডও ছিল না আমার কাছে। তবে জেলা প্রশাসন যেভাবে সাহায্য করেছে তা কল্পনাতীত। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এই ঋণ কখনও পরিশোধ করতে পারব না। মহকুমা শাসকও যথেষ্ট সাহায্য় করেছেন। ছেলের চিকিৎসার খরচ তুলতে কালঘাম ছুটছিল। তবে, স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড হাতে পেয়ে শান্তি পেয়েছি। এবার ছেলের চিকিৎসা ভালোভাবে করা সম্ভব হবে।’