শিলিগুড়ি ক্রিকেট লিগে ছেলেদের সঙ্গে মেয়েদের খেলানোর প্রস্তাব

81
অস্ট্রেলিয়ায় পুরুষ ক্রিকেটারদের সঙ্গে সারা টেলর। শিলিগুড়িতে এমন দৃশ্য দেখা যাবে?

শুভময় সান্যাল, শিলিগুড়ি : ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ায় প্রথম দেখা গিয়েছিল ছেলেদের সঙ্গে মেয়েদের খেলতে। ভারতে কি যুগান্তকারী সেই রাস্তা প্রথম দেখাবে শিলিগুড়ি?  শিলিগুড়ি মহকুমা ক্রীড়া পরিষদের প্রস্তাব কার্যকর হলে শিলিগুড়িতেও দেখা যেতে পারে এমন ঘটনা। এবং প্রথম ডিভিশন ক্রিকেটেই। ক্রীড়া পরিষদ সবুজসঙ্কেত চেয়েছে সিএবির। ছয় বছর আগে দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্ট এন্ড প্রিমিয়ার ক্রিকেটে খেলতে দেখা গিয়েছিল সারা টেলরকে। নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টসের হয়ে পোর্ট অ্যাডিলেডের বিরুদ্ধে মাঠে নেমে ইতিহাসে নাম লিখিয়েছিলেন ইংরেজ উইকেটকিপার। পুরুষদের গ্রেড ক্রিকেটে তিনিই প্রথম মহিলা প্রতিনিধি।

শিলিগুড়িতে আসন্ন প্রথম ডিভিশন লিগে ছেলেদের সঙ্গে সিনিয়র ডিস্ট্রিক্ট খেলা মেয়েদের ক্রিকেটারদের খেলানোর প্রস্তাব রাখলেন ক্রিকেট সচিব মনোজ ভার্মা। বৃহস্পতিবার কার্যনির্বাহী সমিতির সভায় তা সর্বসম্মতিতে পাসও হয়ে যায়। তারপরও শিলিগুড়ি ক্রিকেটের সারা টেলর হয়ে ওঠার জন্য পুনম সোনি, শ্রেয়া হাজরা, শিঞ্জিনী সরকারদের আরও একটু ধৈর্য ধরতে হবে। ক্রীড়া পরিষদের সচিব কুন্তল গোস্বামী বলেছেন, চূড়ান্ত ঘোষণার আগে আমাদের অভিভাবক সংস্থা সিএবি-র সম্মতি নিতে হবে।

- Advertisement -

শিলিগুড়িতে প্রস্তুতি প্রতিযোগিতায় পুরুষদের সঙ্গে মহিলাদের প্রতিদ্বন্দ্বিতার স্বাদ আগে মিললেও মহকুমা ক্রীড়া পরিষদের প্রতিযোগিতায় এমন দৃশ্য দেখা যায়নি। তাই প্রস্তাবেই শিলিগুড়ি ক্রিকেটে হইচই। উত্তরায়ণ ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের শিঞ্জিনীর মন্তব্য, মেয়েদের তুলনায় ছেলেরা অনেকটাই জোরে বল করে। তাছাড়া ছেলেদের সঙ্গেই আমরা অনুশীলন করি। ওদের সঙ্গে খেলায় নামার সুযোগ পেলে পেস বল খেলা নিয়ে ভীতি অনেকটাই কেটে যাবে। সিদ্ধান্ত চড়ান্ত হলে উপকৃত হব। রিচা ঘোষের উদাহরণ টেনে বাঘা যতীন অ্যাথলেটিক ক্লাবের শ্রেয়া বলেছেন, রিচা ছেলেদের সঙ্গে খেলে স্কিল-পাওয়ারে উন্নতি করেছে। এজন্যই তো টিন এজারেই জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছে ও।

মনোজবাবু ক্লাবগুলির কাছে আবেদন রেখে বলেছেন, খেলাতেই হবে বাধ্যবাধকতা না থাকলেও ক্লাবগুলির কাছে আবেদন রাখছি একজন মেয়েকে প্রথম এগারোয় রাখার জন্য। মহিলা ক্রিকেটাররা সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে আরও অনেক রিচা দেশকে উপহার দিতে পারব। পুরুষদের সঙ্গে মহিলাদের ফুটবল প্র‌্যাকটিস কিন্তু বিরল ছবি নয়। মেয়েদের স্ট্যামিনা বাড়াতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে থাকে। অনেকটা একই দৃষ্টিভঙ্গি থেকে প্রস্তাব নিয়েছে মহকুমা ক্রীড়া পরিষদও। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে প্রস্তাবে সিএবি-র সিলমোহর পড়বে কি না তা নিয়ে।

২৩ বছর ধরে শিলিগুড়িতে আম্পায়ারিং করা দেবাশিস গুহ বলছেন, মনে হয় না সিএবি-র গাইডলাইনে আটকাবে। ক্রীড়া পরিষদ নিঃসন্দেহে ভালো পদক্ষেপ নিয়েছে। সিএবি-র জেলা কোচিং কমিটির চেয়ারম্যান জয়ন্ত ভৌমিক তুলনায় অনেকটাই রক্ষণাত্মক। তাঁর মন্তব্য, সচরাচর এমন প্রস্তাবের কথা শোনা যায় না। তাই সিএবি কী সিদ্ধান্ত নেবে এখনই বলতে পারছি না। তবে প্রস্তাব কার্যকর হলে শিলিগুড়ির মহিলা ক্রিকেটারদের উপকার হবে।

শিলিগুড়িতে বিধানসভা ভোটের তারিখ পড়েছে ১৭ এপ্রিল। আর এপ্রিলের শেষ সপ্তাহ থেকেই একে একে অ্যাথলেটিক্স, ক্রিকেট, ভলিবল প্রতিযোগিতা শুরু করে দিতে চান পরিষদ সচিব। ক্রিকেট লিগ নিয়ে আরও একটি ঘোষণা করেছেন মনোজ। বলেছেন, আমরা একটি নতুন অ্যাপ আনতে চলেছি। আগ্রহীরা অনলাইনে সেখান থেকেই ম্যাচের স্কোর জানতে পারবেন।